প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গত ২ বছরে ভারতে জ্বালানির চাহিদা ঠেকল নিম্নতমে

রাশিদ রিয়াজ : ভারতে জালানি চাহিদার নিম্নগামী এই গতির জেরে রান্নার গ্যাস (এলপিজি) ও পেট্রলের বিক্রিও বাড়েনি। পেট্রলের বিক্রি যদিও ৬.২% বেড়ে ২৩.৭০ কোটি টনে পৌঁছেছে, তবে জেট ফুয়েল বা এটিএফ-এর চাহিদা ১.৬% কমে গিয়ে দাঁড়িয়েছে মাত্র ৬,৬৬,০০০ টনে। সেপ্টেম্বর মাসে পেট্রলজাত পণ্যের ব্যবহার কমে দাঁড়ায় ১.৬০১ কোটি টনে, যা ২০১৭ সালের জুলাই মাসের পর থেকে নিম্নতম। ভারতে সর্বাধিক ব্যবহৃত জ্বালানি ডিজেলের চাহিদাও ৩.২% কমে দাঁড়ায় ৫৮ লাখ টনে। ন্যাপথা বিক্রির পরিমাণও কমে দাঁড়ায় ৮,৪৪,০০০ টনে। সড়ক নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় বিটুমিনের চাহিদা ৭.৩% কমে দাঁড়িয়েছে ৩,৪৩,০০০ টনে।  সেপ্টেম্বর মাসে জ্বালানি তেলের চাহিদা ৩.৮% কমে দাঁড়িয়েছে ৫,২৫,০০০ টনে। এই তথ্য জানা গিয়েছে পেট্রোলিয়াম প্ল্যানিং অ্যান্ড অ্যানালিসিস সেল-এর (পিপিএসি) দেওয়া হিসেব থেকে।

লাগাতার সরকারি প্রচারের ফলে অবশ্য এলপিজির চাহিদা ৬% বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২১.৮০ কোটি টনে। তবে তার জেরে কেরোসিনের চাহিদা প্রায় ৩৮% কমে ১,৭৬,০০০ টনে দাঁড়িয়েছে। আশার কথা, পেট্রোলিয়াম কোকের চাহিদা ১৮% বেড়ে ১৭.৩০ টনে দাঁড়িয়েছে।

এদিকে ফিচ সলিউশনস-এর পূর্বাভাস অনুযায়ী, ২০২১ সালের মধ্যে জ্বালানির চাহিদা ৪.৬% থেকে আরও নেমে ৩.৮% হতে চলেছে। টাইমস অব ইন্ডিয়া

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত