প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঢেউটিন ফেরত দিলেন চেয়ারম্যান

ডেস্ক রিপোর্ট : অভিযোগের পর নিজের ঘরে লাগানো ঢেউটিন খুলে ভুক্তভোগীকে ফেরত দিয়েছেন লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার পলাশী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শওকত আলী।দেশ রূপান্তর

গত রোববার রাতে ব্যবহার করা টিন ফেরত দেওয়ার বিষয়ে সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেওয়ার ঘটনায় আদিতমারী থানায় অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী ভ্যানচালক একরামুল হক। একরামুল হক উপজেলার পলাশী ইউনিয়নের নামুড়ি গ্রামের মৃত সামছুল ইসলামের ছেলে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা ত্রাণ অফিস থেকে দেড় বছর আগে নামুড়ি গ্রামের একরামুল হকের নামে ১৬টি ত্রাণের ঢেউটিন বরাদ্দ দেওয়া হয়। সেই টিন পলাশী ইউপি চেয়ারম্যান শওকত আলী উত্তোলন করে নিজ বাড়িতে ব্যবহার শুরু করেন। একই সঙ্গে ওই ভ্যানচালকের নামে একটি সোলার প্যানেলও বরাদ্দ নিয়ে চেয়ারম্যান নিজের কাজে ব্যবহার করেন। সেই টিন ও সোলার চাইতে গেলে বিভিন্ন অজুহাতে সময়ক্ষেপণ করেন ইউপি চেয়ারম্যান শওকত আলী।

অসহায় হয়ে টিন ও সোলার উদ্ধার করতে ভ্যানচালক একরামুল গত ৯ অক্টোবর জেলা প্রশাসকসহ সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেন। বিষয়টি জানতে পেরে চেয়ারম্যান কৌশলে ওই ভ্যানচালককে রোববার বাড়িতে ডেকে একটি সাদা কাগজে স্বাক্ষর নিয়ে ব্যবহৃত ১২টি ঢেউটিন ফেরত দেন। তবে সেগুলো ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সরবরাহ করা টিন নয়। ফেরত দেওয়া ঢেউটিনে ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের কোনো সিল নেই।

এ ঘটনায় ত্রাণ অফিস থেকে দেওয়া টিন, সোলারসহ স্বাক্ষর নেওয়া সাদা কাগজটি উদ্ধার করতে ওই দিন রাতেই আদিতমারী থানায় অভিযোগ দেন একরামুল।

আদিতমারী উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মজিদুল ইসলাম বলেন, যদি সিলমোহর না থাকে, তাহলে সেগুলো ত্রাণের টিন হতে পারে না।

পলাশী ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান শওকত আলী ত্রাণের টিন আত্মসাতের অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, দেড় বছর আগেই প্রাপ্তি স্বীকার নিয়ে একরামুলকে ত্রাণের ঢেউটিন দেওয়া হয়েছে। আদিতমারী থানার ওসি (তদন্ত) সাইফুল ইসলাম অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, বিষয়টি তদন্তাধীন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত