প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

উপাচার্য নিয়োগের প্রক্রিয়া পরিশুদ্ধ না করলে একজনের পদত্যাগ দিয়ে কোনো সমাধান হবে না, বললেন সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম

আমিরুল ইসলাম : বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় উপাচার্যের পদত্যাগ দাবি করছে বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা। তাদের এ দাবি সঠিক কিনা জানতে চাইলে শিক্ষাবিদ সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম বলেছেন, বাংলাদেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর উপাচার্য নিয়োগের প্রক্রিয়া পরিশুদ্ধ করতে না পারলে একজনের পদত্যাগ দিয়ে কোনো সমাধান হবে না।

তিনি বলেন, নৈতিক দায়িত্ব কাঁধে নিয়ে বুয়েটের উপাচার্য পদত্যাগ করতেই পারেন, তাতে সমাধান কী হবে? আরেকজন তো আসবেন তিনি তো তার পথেই হাঁটবেন। সেজন্য উপাচার্য নিয়োগ পদ্ধতিটাই পরিবর্তন করতে হবে। উপাচার্য সেই ব্যক্তি হবেন, যিনি একজন শিক্ষাবিদ হবেন। তিনি সরকারের ধার ধারবেন না, তিনি শিক্ষার্থীদের পক্ষে থাকবেন, শিক্ষার পক্ষে থাকবেন এবং তাকে কোনো রাজনৈতিক দল নিয়ন্ত্রণ করবে না। তার সেই সোজা মেরুদণ্ড থাকতে হবে, যে পরিষ্কার মুখের উপর বলে দিতে পারবেন। আমার শিক্ষাঙ্গন এবং শিক্ষার্থীর বাইরে আর কেউ নেই। কোনো ছাত্রনেতা তাকে কোনো কথা বলতে চাইলে তার প্রথম কাজ হবে ছাত্র হিসেবে আসছে নেতা হিসেবে নয়। ছাত্রনেতা বলে কিছু নেই। ছাত্রনেতা হবে সেই যে ছাত্রদের পথ দেখাবে। আমাদের রাজনৈতিক সংস্কৃতি শুদ্ধ না হলে এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে সরকারের নিয়ন্ত্রণ না ওঠে গেলে এভাবেই চলতে থাকবে। এখন যেরকম রাজনৈতিক দলগুলো সিদ্ধান্ত নেন কারা উপাচার্য হবেন, কারা হবেন না। উপাচার্যরাও রাজনৈতিক দলে নাম লেখান। শিক্ষকরাও রাজনৈতিক দলে নাম লেখিয়ে নানা ধরনের পদ পেতে চান। যতোদিন লোভের সংস্কৃতি চলবে ততোদিন একজন উপাচার্য পদত্যাগ করলে কোনো সমাধান হবে না।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত