প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মানব সমাজে দানবের ঠাঁই হতে পারে না

লুৎফর রহমান রিটন : একজন মানুষকে কতোক্ষণ ধরে প্রহার করলে মরে যায় মানুষটা? এক ঘণ্টা? দুই ঘণ্টা? বুয়েটের ছাত্ররূপী নেকড়েগুলো আবরারকে প্রহার করেছে রাত আটটা থেকে দেড়টা পর্যন্ত। সুরতহাল রিপোর্ট প্রস্তুতকারী/ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসকের ভাষ্যমতে, দৃশ্যত রক্তপাতহীন এই টর্চারে একজন মানুষ মরে যায় প্রচ- ব্যথায়, অসহনীয় ব্যথায়। টানা সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা ধরে অসহনীয় ব্যথার নরক যন্ত্রণা ভোগ করতে করতে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছে ছেলেটা।

আহারে! যতোবার ভাবি চোখ আমার ঝাপসা হয়ে আসে। কতো কষ্টই না পেয়েছে ছেলেটা। সুদূর অতীত কিংবা নিকট অতীতে আমরা দেখেছি প্রশাসন সবসময় খুনি আর ধর্ষকদের পক্ষ নিয়ে নেয় অবলীলায়। রাজনৈতিক দলগুলো নির্লজ্জভাবে খুনিকে বের করে নেয় শাস্তির আওতা থেকে। আবরারের খুনিদের বেলাতেও কি সেরকম কিছু হবে? যেন না হয়। শাস্তি চাই। সর্বোচ্চ শাস্তি চাই। একটা দৃষ্টান্ত অন্তত তৈরি হোক। মানব সমাজে দানবের ঠাঁই হতে পারে না। ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় আবরারের বাবা-মায়ের হৃদয় আকুল করা কান্না-আহাজারী তো শুনলাম। এবার বুয়েটে পড়তে আসা কুলাঙ্গার খুনি নেকড়েগুলোর বাবা-মায়ের ভাষ্য আমরা শুনতে চাই। খুনিদের বাবা-মায়েরা, টাকা এবং ক্ষমতার জোরে নিরপরাধ তকমা সেঁটে ছাড়িয়ে এনে মুরগির মাংসের ঝোল মাখানো ভাতের লোকমা তুলে দেবেন সন্তানরূপী ওরকম একটা ভয়ংকর খুনির মুখে? মনে রাখবেন সে কিন্তু মানুষ নয়, একটা দানব। মানুষরূপী একটা জানোয়ারের বাবা-মা হিসেবে আপনার কি একটুও লজ্জা করবে না। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত