প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্লিজ, আবরার হত্যার বিচার করতে দিন!

এম আবুল হাসনাত মিল্টন : ছাত্রলীগের কিছু কুলাঙ্গার বুয়েট ছাত্র আবরারকে নৃশংস কায়দায় পিটিয়ে হত্যা করেছে। এই অভিযোগে ছাত্রলীগ থেকে দশজনকে বহিষ্কার করা হয়েছে। পুলিশ ইতোমধ্যে নয়জনকে গ্রেফতার করেছে। পত্রিকায় খবর বেরিয়েছে, অভিযুক্ত ছাত্রলীগারদের মধ্যে বুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাসেলসহ অন্তত তিনজন শিবিরের সাবেক কর্মী।

সমগ্র দেশ এই হত্যায় ক্ষুব্ধ, শুধু জামায়াত-বিএনপি ছাড়া। দেশে আগুন লাগলে আলু পোড়ানো ব্যতীত আপাতত জামায়াত-বিএনপির কোনো কাজ নেই। আবরার হত্যার বিচারের দাবিতে সবাই যখন সোচ্চার, তখন ২০১৩ সালে ভারতের এক মিথ্যা ভিডিও ভাইরাল করায় এরা ব্যস্ত। ভারতে হিন্দু মেয়েকে বিয়ে করার অপরাধে নীল প্যান্ট পরা এক মুসলমান ছেলেকে চারদিকে চারজন ধরে রেখে অন্যরা ব্যাপক প্রহার করছে এই ভিডিও জামায়াত-বিএনপি চক্র ভাইরাল করে বলছে, এটা নাকি বুয়েটের রুমে আবরারকে প্রহারের দৃশ্য। ছাগুর বাচ্চারা মিথ্যা ভিডিও ভাইরাল করার আগে দেখেওনি যে বুয়েটের রুম ওরকম হয় না।

আর ফেবু প্রজন্মের অনেকেই নিজেদের বোধ-বুদ্ধি বন্ধক রেখে এই ভুয়া ভিডিও অন্যের ইনবক্সে পাঠিয়ে দোজাহানের অশেষ নেকী হাসিল করায় ব্যস্ত। আরেকদল ছাগু আবরারকে ভারতবিরোধী আন্দোলনের প্রথম শহীদ বলে প্রচার করে বেড়াচ্ছে। এসব ছাগুদের এড়িয়ে চলুন। আবরার হত্যার যেন সুষ্ঠু বিচার হয়, সে ব্যাপারে সোচ্চার থাকুন। এর আগে ২০০২ সালে বুয়েটে সানী হত্যার পর ছাত্রদলের খুনি ক্যাডারকে সরকারি প্রহরায় বিদেশে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছিলো। এবার অন্তত সেরকম কিছু ঘটেনি। বরং পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে খুনিদের গ্রেপ্তার করেছে। আবরারের খুনিদের বিচার চাই। জামায়াত-বিএনপিকে ‘না’ বলুন। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত