প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বুয়েটে শিক্ষক রাজনীতিও বন্ধের দাবি

ডেস্ক রিপোর্ট : বুয়েট শিক্ষার্থী আবরারকে হত্যার প্রতিবাদে চলা আন্দোলন ও দাবির সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক ও ছাত্র রাজনীতি বন্ধ ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির ৩০০ শিক্ষক। বুধবার (৯ অক্টোবর) নিজেদের সভা শেষে শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক একেএম মাসুদ রানা আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সামনে এসে এ কথা জানান।বাংলা ট্রিবিউন

আবরার হত্যার ঘটনায় বুয়েটে উত্তুঙ্গ পরিস্থিতির মধ্যে বুধবার (৯ অক্টোবর) সকালে শিক্ষক সমিতির আহ্বানে বৈঠকে বসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩০০ শিক্ষক। কয়েক ঘণ্টাব্যাপী বৈঠকে আবরার হত্যায় জড়িতদের বহিষ্কার, হলগুলো বহিরাগতমুক্ত করা, আবরারসহ বিগত সময়ের সকল নির্যাতনের বিচার করার পাশাপাশি ব্যর্থতার দায় নিয়ে ভিসির পদত্যাগ দাবি করে শিক্ষক সমিতি।

নিজেদের সভা শেষে শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক একেএম মাসুদ রানা আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সামনে এসে তাদের সিদ্ধান্তগুলোর কথা জানান।

শুরুতেই তিনি বলেন, আমরা আবরারের মৃত্যুতে শোক প্রস্তাব গ্রহণ করেছি। এখানে ৩০০ শিক্ষক মিলে হলগুলোসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেছি। আমরা বেশ কিছু বিষয়ে একমত হয়েছি।

শিক্ষকদের পক্ষ থেকে নেওয়া সিদ্ধান্তগুলোর বিষয়ে অধ্যাপক মাসুদ রানা বলেন, প্রথমেই আমরা শিক্ষক সমাজের পক্ষ থেকে আবরারের পরিবারের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী। আমাদের প্রশাসন ব্যর্থ হয়েছে। দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে এই হত্যায় জড়িতদের বিচার করতে হবে। জড়িতদের বিশ্ববিদালয় থেকে বহিষ্কার করতে হবে। হলগুলো বহিরাগতমুক্ত করে সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক ও ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করতে হবে।

তিনি বলেন, আমরা সকল প্রকার প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ শিক্ষক ও ছাত্র রাজনীতি কর্মকাণ্ড নিষিদ্ধের ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় এ ধরনের কর্মকাণ্ড চলতে চলতে আজকের এই অবস্থায় এসে পৌঁছেছে। আমরা সরকার ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলোর সহায়তা চাই।

তিনি বলেন, আবরারসহ সকল নির্যাতনের সুষ্ঠু তদন্ত করে বিচার করতে হবে। ব্যর্থতার দায় নিয়ে ভিসিকে পদত্যাগ করতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ও ভর্তি কার্যক্রম বন্ধ রাখার দাবি জানিয়ে আসছেন আন্দোলনকারীরা। এ ব্যাপারে শিক্ষক সমিতির সভাপতি একেএম মাসুদ রানা বলেন, এগুলো কোনও একক সিদ্ধান্তের বিষয় নয়। একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় এসব বিষয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

শিক্ষার্থীদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ শেষে বুয়েট শহীদ মিনারের সামনে আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের দ্রুত বিচার দাবিতে মানবন্ধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত