প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ম্যাকরন ব্যবস্থা করেছিলেন কিন্তু ট্রাম্পের ফোন রিসিভ করেন নি রুহানি

রাশিদ রিয়াজ : আমেরিকা সফরের সময় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের একটি ফোন কল রিসিভ করতে অস্বীকার করেছিলেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৪তম বার্ষিক অধিবেশনে যোগ দেয়ার জন্য তিনি সম্প্রতি নিউইয়র্ক সফর করেন। সে সময় ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরন গোপনে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে প্রেসিডেন্ট রুহানির এই ফোনালাপের ব্যবস্থা করেন।

মার্কিন নিউ ইয়র্কার ম্যাগাজিন সোমবার এক রিপোর্টে বলেছে, ফরাসি প্রেসিডেন্ট ম্যাকরন খুবই চেষ্টা করেছিলেন যাতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি সাক্ষাৎ করেন। নিউ ইয়র্ক সফরের সময় প্রেসিডেন্ট রুহানি মিলেনিয়াম হিলটন হোটেলে ছিলেন এবং তিনি ওই হোটেল ভবনের যে ফ্লোরে অবস্থান করছিলেন সেই ফ্লোরে ২৪ সেপ্টেম্বর ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে টেলিফোন সংলাপের আয়োজন করতে চেয়েছিলেন ইমানুয়েল ম্যাকরন।

নিউ ইয়র্কার ম্যাগাজিন বলছে, প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরন আশা করেছিলেন হাসান রুহানি এবং ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যে টেলিফোনে আলাপ হলে বৈঠকে বসার একটা ব্যবস্থা তৈরি হবে। এধরনের বৈঠক হলে তা হতো ১৯৭৯ সালে ইসলামি বিপ্লব সফল হওয়ার পর ইরান ও আমেরিকার প্রেসিডেন্টের মধ্যে প্রথম বৈঠক হতো।

২৪ সেপ্টেম্বরের ওই ঘটনার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ কয়েকটি সূত্র বলেছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের পক্ষ থেকে রাত সাড়ে নয়টার দিকে টেলিফোনে কল আসে এবং ম্যাকরন সে কল রিসিভ করেন। কিন্তু প্রেসিডেন্ট রুহানি তার কক্ষ ছেড়ে ওই টেলিফোনে কথা বলতে যান নি। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প টেলিফোনের অন্যপ্রান্তে অপেক্ষা করলেও প্রেসিডেন্ট রুহানি ট্রাম্পের সঙ্গে কথা বলেন নি।

এসময় প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির হোটেল কক্ষের বাইরে অবস্থান করছিলেন ম্যাকরন ও তার কয়েকজন উপদেষ্টা। এ অবস্থায় প্রেসিডেন্ট ম্যাকরন অনেকটা খালি হাতে তার হোটেল কক্ষে ফিরে যান এবং ট্রাম্প অনেকক্ষণ ঝুলন্ত অবস্থায় থাকেন।

ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরন বেশ কিছুদিন ধরেই ইরান এবং আমেরিকার ভেতরে মধ্যস্থতা করার চেষ্টা করছেন যাতে দুই দেশের মধ্যকার উত্তেজনা কমে আসে। জাতিসংঘ অধিবেশনের সময় তিনি বলেছিলেন, সম্ভবত কয়েক সপ্তাহের ভেতর এই এ প্রচেষ্টার সফলতা মিলতে পারে। সেসময় তিনি প্রেসিডেন্ট রুহানি ও ট্রাম্পের মধ্যে বৈঠকের একটা ইঙ্গিত দিয়েছিলেন।

সর্বাধিক পঠিত