প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চার মাস আটকে রাখার পর দুই পশতুন আইনপ্রণেতাকে মুক্তি দিয়েছে পাকিস্তান

সাইফুর রহমান : এই দুই মানবাধিকার কর্মী এবং পার্লামেন্ট সদস্যকে উত্তর-পশ্চিম খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশের হরিপুর কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি দেয়া হয়েছে বলে শনিবার তাদের আইনজীবি রয়টার্সকে জানিয়েছেন। গত মে মাসে উত্তর পাকিস্তানের একটি সিকিউরিটি পোষ্টে ‘পশতুন তাহাফ্ফুজ মুভমেন্টে’র কর্মীদের সঙ্গে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সংঘর্ষ বাধলে আরো অনেক কর্মীর সঙ্গে এই দুই নেতাকেও গ্রেপ্তার করা হয়। ইয়ন

পশতুন এবং অন্যান্য সংখ্যালঘুকে পাকিস্তান সরকার বিচার বহির্ভূতভাবে হত্যা করছে এবং অনেককে অপহরণ কিংবা গুম করে ফেলছে এমন দাবি করে এর বিরুদ্ধে ক্যাম্পেইন পরিচালনা করছিল পিটিএম। গতবছর দক্ষিণ করাচিতে পুলিশের হাতে এক পশতুন সংখ্যালঘু নিহত হবার পর এই আন্দোলন শুরু হয়। যা একসময় দেশব্যাপি বিক্ষোভের জন্ম দেয় এবং পশতুনদে বিরুদ্ধে রাষ্ট্রীয় সহিংসতার অভিযোগকে জাতীয় বিতর্কে পরিণত করে।

এদিকে পাকিস্তান সেনাবাহিনী ‘পশতুন তাহাফ্ফুজ মুভমেন্ট’কে ইসলামপন্থি জঙ্গিদল আখ্যা দিয়ে দাবি করে যে, পাকিস্তানকে অস্থিতিশীল করার জন্য আফগানিস্তান এবং পাকিস্তান তাদের অর্থসহায়তা দিচ্ছে। সেনাবাহিনী সেখানে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করছে বলেও পাকিস্তানের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়। যদিও বিদেশি কোনো সংস্থার সঙ্গে সংযোগেন কথা অস্বীকার করে পিটিআই।

২৬ মে একটি নিরাপত্তা চৌকিতে মহসিন দাওয়ার এবং আলি ওয়াজিরের নেতৃত্বে বিক্ষোভে অংশ নেয়া একদল বিক্ষোভকারীর উপর গুলিবর্ষণ করে পাকিস্তান সেনাবাহিনী। এসময় ১৩জন সমর্থক নিহত হন বলে বিক্ষোভকারীরা দাবি করে। তবে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, বিদ্রোহীরা চেকপোষ্টে হামলা চালানোর পর তারা গুলি চালায় এবং তিনজন নিহত হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ