প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বরিশালে চিকিৎসকের অবহেলায় রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ

খোকন আহম্মেদ হীরা : চিকিৎসকের অবহেলায় বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এক রোগীর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার সকালে হাসপাতালে মৃত রোগীর স্বজনরা বিক্ষুব্ধ হয়ে পরলে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

হাসপাতাল ও প্রতক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, সকাল সোয়া আটটার দিকে হাসপাতালের তৃতীয় তলায় মহিলা সার্জারী ওয়ার্ডে সুলতানা নামের এক রোগীর মৃত্যু হলে স্বজনরা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে হট্টগোল বাঁধান। তারা পঞ্চম তলায় চিকিৎসকের রুমের সামনে গিয়ে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে তৃতীয় তলার সেবিকার রুমের কাগজপত্র ফেলে দেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

মৃতের স্বজন জাহাঙ্গীর হোসেন ও আব্দুল আজিজ জানান, গত ২৭ আগস্ট বরিশালের হেমায়েত উদ্দিন ডায়বেটিক হাসপাতালে সদর উপজেলার চরকাউয়া গ্রামের বাসিন্দা বশির খানের স্ত্রী সুলতানা বেগম (৩২) গর্ভবতী অবস্থায় ভর্তি হন। ওইদিনই সেই হাসপাতালে সিজারের মাধ্যমে একটি পুত্র সন্তানের জন্ম দেন তিনি। এরপর সেখান থেকে চলে যাওয়ার ৪/৫ দিনের মধ্যে সুলতানা হঠাৎ করে অসুস্থ হয়ে রেডক্রিসেন্ট হাসপাতালে ভর্তি হয়। যেখান থেকে গত ১৫ সেপ্টেম্বর বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালের মহিলা সার্জারী-৩ ইউনিটে ভর্তি করা হয়।
সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার সকাল আটটায় হঠাৎ করেই সুলতানা মৃত্যুবরণ করেন। মৃতের স্বজনরা আরও অভিযোগ করেন, বৃহস্পতিবারও সুলতানা সুস্থ্য ছিলো, হাটাচলা করছিলো। তাদের অভিযোগ বারবার বলার পরেও সুলতানার যথাযথ খোঁজ-খবর নেননি দায়িত্বরত চিকিৎসকেরা।

শেবাচিম হাসপাতালের চিকিৎসকদের মতে, এ রোগী আগে থেকেই সঙ্কটাপন্ন অবস্থায় ছিলো। তার যথাযথ চিকিৎসা করা হয়েছে। কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই শাহজালাল বলেন, রোগীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে স্বজনরা ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। পরে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে। তিনি আরও বলেন, স্বজনরা মৃতের লাশ নিয়ে গেছেন। বর্তমানে হাসপাতালের পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ