প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ছাত্র লীগ-যুবলীগ নামধারীরা রাজনীতিকে দুর্বৃত্তায়িত করে তুলেছে, বললেন সাইফুল হক

রফিক আহমেদ : বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেছেন, বাংলাদেশ ছাত্র লীগ ও যুব লীগের কিছু চিহ্নিত ব্যক্তি সমগ্র রাজনীতিকে কালিমালিপ্ত করেছে।যা দেশের জন্য অশনি সংকেত হিসেবে দেখা দিয়েছে।বুধবার এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেন।

বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদ বলেন, ঐতিহ্যবাহী ছাত্র লীগের এ ঘটনা খুবই অপমান ও লজ্জাজনক। এটা বাস্তবে ছাত্র লীগের সংগ্রামী ঐতিহ্যকে চরমভাবে কলুষিত করেছে। এই লজ্জা শুধুমাত্র ছাত্র লীগের নয়, বাস্তবে সরকারি দলেরও। ছাত্র লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে চাঁদাবাজির জন্য অব্যাহতি দিয়ে সরকারি দল যেভাবে মুখ রক্ষার চেষ্টা করেছে। কিন্তু তা করে কিছুটা লজ্জা ডাকা পড়েছে।গণ মাধ্যমে যেসব সংবাদ আসছে তাতে দেখা যাচ্ছে ছাত্র লীগের কেন্দ্রীয় কমিটিসহ বিভিন্ন স্তরের কমিটির নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধেও একই ধরণের চাঁদাবাজি ও জবর দস্তির হাজার হাজার উদাহরণ রয়েছে।

তিনি বলেন, ছাত্র লীগ বাস্তবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে কেন্দ্র করে চাঁদাবাজি, দখল দারিত্ব, সিট বাণিজ্য, ভর্তি বাণিজ্যও করে চলেছে। দেশব্যাপী লাখ লাখ ছাত্র-ছাত্রীকে তারা এক ধরণের জিম্মি করে ফেলেছে। রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক ছত্রছায়ায় থেকে বছরের পর বছর এদের দৌরাত্ম্য এখন চরমে উঠেছে। এদের এ দৌরাত্ম্যের কাছে ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক ও কর্মচারীরাও জিম্মি হয়ে আছে। ছাত্র লীগের সদ্য বরখাস্তকৃত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ বিভিন্ন স্তরের নেতাদের বিলাসী জীবন অসংখ্য মুখরোচক গল্পের জন্ম দিয়েছে।
তিনি আরো বলেন, সরকারি দলের যুব লীগও একই ধরণের বেপরোয়া চাঁদাবাজি, সন্ত্রাস, মাস্তানী ও জবর দখলের অপতৎপরতায় লিপ্ত। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সম্প্রতি ছাত্র লীগের পাশাপাশি যুব লীগের বেপরোয়া তৎপরতা সম্পর্কে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে দেখা গেছে। যুব লীগ নিজেরা অভ্যন্তরীন ট্রাইব্যুনাল গঠন করে তাদের সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজ নেতাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের কথা বলেছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ