প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভাই-বোন হত্যার কাহিনি প্রকাশ করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্টোকস

স্পোর্টস ডেস্ক : বিশ্বকাপের ফাইনালে ইংল্যান্ডকে জিতিয়ে দেশটির নায়ক বনে যান বেন স্টোকস। চমক দেখিয়ে অ্যাশেজ সিরিজেও দুর্দান্ত খেলে ইংল্যান্ডকে জিতিয়ে মহানায়ক হয়ে যান এ তারকা ক্রিকেটার। অ্যাশেজ সিরিজ শেষে ক্রিকেট থেকে দূরে থাকার সময়ও মিলেছিল স্টোকসের। কিন্তু স্টোকস যখন অবসর সময়ের পরিকল্পনা সাজাচ্ছিলেন, তার জীবন নাড়িয়ে দিলো পূর্বের একটি মর্মান্তিক ঘটনা। যেটি প্রকাশ করায় মিডিয়ার প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এই ইংলিশ অলরাউন্ডার।

৩১ বছর আগের একটি ঘটনা ফিরে এসেছে স্টোকসের জীবনে। সে সময় তিনি জন্মগ্রহণও করেননি। ১৯৮৮ সালের ঘটনা, স্টোকসের সৎ ভাই-বোনকে হত্যা করেছিলেন তাদেরই বাবা।

স্টোকস এই বিষয়ে কোনোদিন কথা না বললেও দা সান তাদের একটি প্রতিবেদনে বিষয়টি তুলে ধরেছে। স্টোকসের জন্মের তিন বছর আগের এই ঘটনার বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে তারা।

স্টোকসের মা ডেব এবং তার স্বামী রিচার্ড ডানের পরিবারে দুটি সন্তান ছিলো (ট্রেসি, ৮ বছর এবং অ্যান্ড্রু, ৪ বছর)। ১৯৮৮ সালে স্টোকসের মায়ের সাবেক স্বামী রিচার্ড ডান নিজ হাতে তার দুই সন্তানকে হত্যা করেন।

ডান এবং ডেবের বৈবাহিক জীবনে অনেক দ্বন্দ্ব ছিলো, যে জন্য তাদের ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। পরবর্তীতে ডান জানতে পারেন, ডেব নিউজিল্যান্ডের রাগবি কোচ জেরার্ড স্টোকসের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছেন।

সে সময় এক সপ্তাহের জন্য দুই সন্তানকে নিজের কাছে রেখেছিলেন ডান। সে সময়ই তাদের হত্যা করেন বাবা ডান। এরপর ১৯৮৮ সালের এপ্রিলে আত্মহত্যা করেন তিনি।

এই ঘটনার আড়াই বছর পর ডেব এবং জেয়ার্ড স্টোকসের কোলজুড়ে আসেন বেন স্টোকস। এরপর ৪ বছর বয়সী স্টোকসকে নিয়ে ডেব নিউজিল্যান্ড থেকে ইংল্যান্ডে পাড়ি জমান। তারপর থেকে সুন্দরভাবেই দিন কাটছে তাদের। হঠাৎ দ্য সানের প্রতিবেদনে এতো বছরের লুকানো ব্যাথা প্রকাশ করায় ক্ষুব্ধ স্টোকস।

তিনি বলেছেন, ‘আমার পরিবারকে নিয়ে ৩১ বছর আগের এক যন্ত্রণাদায়ক এবং অত্যন্ত ব্যক্তিগত প্রতিবেদন আজ প্রকাশ করেছে দ্য সান। সাংবাদিকতার মোড়কে এ রকম ঘৃণ্য এবং নিম্নরুচির প্রতিবেদন সম্পর্কে কী বলবো, বুঝে উঠতে পারছি না।’

তিনি আরও লেখেন, ‘তিরিশ বছর ধরে এই ঘটনা ভুলে থাকতে চেয়েছিলো আমার পরিবার। এই শনিবার দ্য সান এক সাংবাদিককে পর্যন্ত পাঠিয়ে দিয়েছিলো ক্রাইস্টচার্চে। আমার বাবা-মার সঙ্গে কথা বলতে। আমার নাম করে বাবা-মার ব্যক্তিগত জীবন ধ্বংস করার এই চেষ্টা ন্যক্কারজনক।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ