প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি বানানো হবে ভারতের মেঘালয় রাজ্যে

মুসবা তিন্নি : মঙ্গলবার বিকালে ভারত সফররত বাংলাদেশের তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ শিলংয়ের রাজ্য-সচিবালয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠককালে এবিষয়ে প্রস্তাব দিলে তিনি তাৎক্ষণিক সম্মতি প্রকাশ করেন। তথ্যমন্ত্রীর জনসংযোগ কর্মকর্তা মীর আকরাম উদ্দীন আহম্মদ এই তথ্য জনিয়েছেন। অর্থ সূচক

তিনি জানান, আগামী বছরের মার্চে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উদযাপনের রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে অংশ নিতে মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী কনরাড সাঙ্গামাকে বাংলাদেশে আমন্ত্রণ জানান তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। মুক্তিযুদ্ধের সময় আন্তরিক সহযোগিতার জন্য মেঘালয়ের প্রতি বাংলাদেশের কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘নির্মাণ ও স্থাপত্যশিল্পে এশিয়ার সবচেয়ে কর্মপ্রবণ দেশ হিসেবে বাংলাদেশ এখন প্রচুর পাথরের চিপস আমদানি করে। দূরবর্তী অঞ্চল বা দেশ থেকে না এনে মেঘালয় থেকে নিলে সাশ্রয়ী হবে। একইসঙ্গে বাংলাদেশে উৎপাদিত রাবার সুলভে আমদানি করতে পারে মেঘালয়।
তথ্যমন্ত্রীর প্রস্তাবে সাড়া দিয়ে কনরাড সাঙ্গামা জানান, পাথরের চিপস পরিবহন সহজ করার জন্য কনভেয়ার বেল্ট নির্মাণ করবে মেঘালয় রাজ্য সরকার। পাশাপাশি রাবার আমদানির বিষয়টিকেও গুরুত্ব দেবেন তারা। এসময় তামাবিল-ডাউকি সীমান্ত দিয়ে বাস যোগাযোগ, সমন্বিত চেকপোস্ট, সীমান্ত-পারাপার, পণ্যপরিবহন ও সীমান্ত হাট ব্যবস্থাপনা সহজীকরণে দ্রুত অগ্রগতির ওপর জোর দেন তারা।

মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী কনরাড সাঙ্গামাকে বঙ্গবন্ধুর লেখা কারাগারের রোজনামচার ইংরেজি ভার্সনের বই, নৌকা স্মারক, নকশীকাঁথা ও জামদানি উপহার দেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

এর আগে সকালে গৌহাটিতে কিংবদন্তি সংগীত শিল্পী ভূপেন হাজারিকার সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন তথ্যমন্ত্রী। তথ্যমন্ত্রীর সঙ্গে তার স্ত্রী নূরান ফাতেমা, গৌহাটিতে বাংলাদেশ সহকারী হাইকমিশনার এস এম তানভীর মনসুরসহ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকশেষে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন ড. হাছান মাহমুদ। সম্পাদনা : রাশিদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ