প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আজ দিল্লিতে মোদীর সঙ্গে বৈঠকে পশ্চিমবঙ্গের নাম বাংলা রাখার দাবি জানাবেন মমতা

ইমরুল শাহেদ : প্রায় দেড় বছর পর বৈঠকে বসছেন। পশ্চিমবঙ্গের সরকারি সূত্রে জানা যায়, বেশ কিছু দিন আগে বৈঠকের জন্য সময় চাওয়া হয়েছিলো। সোমবার প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে জানানো হয়, মমতার জন্য বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টার সময় বরাদ্দ করা হয়েছে। আনন্দবাজার, এই সময়

নবান্নের একটি সূত্র জানিয়েছে, বিভিন্ন প্রশাসনিক বিষয় নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে চান। এ ছাড়া রাজ্যের বিভিন্ন দাবিদাওয়া প্রধানমন্ত্রীর কাছে পেশ করতে পারেন মমতা। এর আগে বিশ্বভারতীর সমাবর্তনে এক মঞ্চে দেখা গিয়েছিলো দু’জনকে।

১৭ সেপ্টেম্বর ছিলো নরেন্দ্র মোদীর জন্মদিন। এ উপলক্ষ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। পালটা ধন্যবাদ জানিয়েছেন মোদীও। শুধু তাই নয়, কলকাতা বিমানবন্দরে মোদীর স্ত্রী যশোদাবেনের সঙ্গে হঠাৎ সাক্ষাৎ হলে তাকে শাড়িও উপহার দিয়েছেন মমতা। মোদীর সঙ্গে বৈঠকের পর আরও এক দিন দিল্লিতে থাকবেন এই তৃণমূল নেত্রী। বিরোধী একাধিক দলের নেতা-নেত্রীদের সঙ্গে মমতার সাক্ষাতের সম্ভাবনা রয়েছে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

সাম্প্রতিক অতীতে বিভিন্ন ইস্যুতেই দুই মেরুতে অবস্থান করছেন দু’জন। কিন্তু রাজনৈতিক বিরোধিতা সরিয়ে উন্নয়নের প্রশ্নে এ বার মুখোমুখি বৈঠকে বসছেন তারা। বৈঠকে রাজ্যের উন্নয়ন ও প্রশাসনিক নানা বিষয়ে দুজনের কথা হবে বলে শোনা যাচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গের নাম বদলানোর বিষয়টি গত মাসের চিঠি লিখে মনে করিয়ে দিয়েছিলেন মমতা। তবে দিল্লি যাওয়ার আগে বিমানবন্দরে মমতা বলেন, এটা রুটিন ভিজিট। সৌজন্য সাক্ষাৎও বলতে পারেন। রাজ্যের দাবিদাওয়া নিয়ে কথা বলতে যেতে হয়। ব্যাংক, পিএসইউসহ বেশ কিছু বিষয়ে কথা আছে।

লোকসভা নির্বাচনের আগে মোদী বিরোধিতায় কার্যত প্রধান মুখ ছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফেডারেল ফ্রন্ট গঠনের ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমকায় দেখা গিয়েছিলো তৃণমূল প্রধানকে। সেই সূত্রে বিজেপি-তৃণমূল বিরোধ চরমে ওঠেছিলো। তারপরে মমতা নিজেও এই ইস্যুতে কেন্দ্র তথা মোদী সরকারের তীব্র সমালোচনা করেন। আসামে এনআরসির চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশের পর শুধু রাজনৈতিক বিরোধিতা নয়, রীতিমতো পথে নেমে প্রতিবাদ করেছেন। বৃহস্পতিবারই কলকাতায় মিছিল করে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন, এক জনের গায়েও হাত দিতে দেবেন না তিনি। সব মিলিয়ে কেন্দ্রের বিরোধী শক্তির মধ্যে অন্যতম হয়ে উঠেছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজনৈতিকভাবে বিপরীত মেরুর দুই শীর্ষ নেতৃত্বের বৈঠকের দিকে তাই নজর থাকবে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের।

আইএস/এমআই/এসবি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ