প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কাশ্মীর ঘুরে এসে ইয়েচুরির দাবি, আদৌ ভালো নেই উপত্যকা

রাশিদ রিয়াজ : ভারতে সিপিএমএর সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরির দাবি, কাশ্মীর নিয়ে মোদী সরকার যা দাবি করছে, বাস্তব পরিস্থিতি তার একেবারে উলটো। মানুষ মনে করছেন, রাজ্য ভেঙে দু’টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল তৈরি করে আদতে তাঁদের অপমান করা হয়েছে। উপত্যকার অন্যতম সমস্যা হল কর্ম সংস্থানের অভাব। এর আগে উপত্যকার সাম্প্রতিক পরিস্থিতির কারণে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হওয়ার পরিকল্পনা নেন ভারতের বামেরা। অক্টোবর মাসের প্রথম সপ্তাহে সুপ্রিম কোর্টে এই আবেদনের শুনানি হবে বলে জানিয়েছেন সিপিএম সাধারণ সম্পাদক। কাশ্মীরের বাম নেতা তারিগামির মতে, কাশ্মীর নিয়ে এখনও পর্যন্ত শুধুমাত্র একপক্ষের বক্তব্যই শুনেছেন দেশবাসী।

জম্মু ও কাশ্মীরের পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়েছে, কেন্দ্রের এই দাবি উড়িয়ে দিল সিপিএম। মঙ্গলবার কাশ্মীরের সিপিএম নেতা ইউসুফ তারিগামির সঙ্গে সাংবাদিক সম্মেলনে দলের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি বলেন, জম্মু ও কাশ্মীর ভেঙে দু’টি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল তৈরি করা এবং ওই অঞ্চলের বর্তমান পরিস্থিতির সঙ্গে জড়িত বিবিধ বিষয় জানিয়ে শীর্ষ আদালতে রিট আবেদন জমা দিতে চলেছে সিপিএম।

এদিন ইয়েচুরি বলেন, ‘ওখানে আসল সমস্যা হল কর্মসংস্থানের অভাব। চল্লিশ দিনের বেশি সময় ধরে মানুষ প্রতিদিন আয় করতে ব্যর্থ হচ্ছে। দ্বিতীয়ত, সরকারি পরিবহণের অভাবে যাঁরা কর্মরত, তাঁদেরও রোজগারে টান ধরেছে।’ ইয়েচুরির দাবি, ‘সরকার যা দাবি করছে, বাস্তব পরিস্থিতি তার একেবারে উলটো। মানুষ মনে করছেন, রাজ্য ভেঙে দু’টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্ল তৈরি করে আদতে তাঁদের অপমান করা হয়েছে।’

জম্মু ও কাশ্মীরে তাঁকে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া এবং চিকিৎসার জন্য অসুস্থ বাম নেতা তারিগামিকে দিল্লির এইমস-এ ভরতি হওয়ার ছাড়পত্র দেওয়ার জন্য এদিন সুপ্রিম কোর্ট এবং প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈকে ধন্যবাদ জানান ইয়েচুরি। এদিনের সম্মেলনে তারিগামি বলেন, ‘কাশ্মীর এর আগেও কঠিন দিন আমরা দেখেছি। মৃত্যু, যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করার মতো ঘটনা অতীতেও দেখেছি। কিন্তু বর্তমানে বোধহয় সবচেয়ে অন্ধকারাচ্ছন্ন সময় এসেছে। যখন দেখি, রক্ষকের দ্বারাই কাশ্মীরবাসীর সঙ্গে ভারতের ঐক্যের ভিত আক্রান্ত হচ্ছে, তখন স্তম্ভিত হই।’

কাশ্মীরের বাসিন্দাদের কণ্ঠস্বর শোনার জন্য দেশবাসীর প্রতি আবেদন জানান তারিগামি। তাঁর মতে, কাশ্মীর নিয়ে এখনও পর্যন্ত শুধুমাত্র একপক্ষের বক্তব্যই শুনেছেন দেশবাসী। তাঁরা মূল ভারতের সঙ্গে হাঁটতে চান। কাশ্মীর সমস্যা সেনা তৈরি করেনি। তাই তারা তার সমাধানও খুঁজে পাবে না। তারিগামির অভিযোগ, উপত্যকায় সমস্যা সৃষ্টির পিছনে একমাত্র রাজনীতিকদেরই অবদান রয়েছে। এই সময়

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ