প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

তেল, গ্যাস-খনিজ নয়, ৪ কোটি শিক্ষার্থীরাই হবে দেশের সম্পদ, বললেন তাহসিন বাহার

মাহফুজ নান্টু, কুমিল্লা : মহানগরীর পদুয়ার বাজার ঐতিহ্যবাহী হাজী আক্রাম উদ্দিন স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবীন বরণ অনুষ্ঠানে রোববার একথা বলেছেন কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য ও কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহার এর জ্যেষ্ঠ মেয়ে, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন জাগ্রত মানবিকতার সাধারণ সম্পাদক ও কুমিল্লা মহানগর মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড আহ্বায়ক তাহসিন বাহার সূচনা।

এ সময় তিনি আরো বলেছেন, শিক্ষাই জাতির মেরুদণ্ড। যে জাতি যতো শিক্ষিত, সে জাতি ও দেশ ততো বেশি উন্নত। কোন দেশের খনিজ সম্পদ তাদের উন্নত শিখরে পৌঁছাতে পারে না। উন্নত শিখরে পৌঁছাতে হলে শিক্ষার বিকল্প নেই। আজকের শিক্ষার্থীরাই আগামীর বাংলাদেশের চালিকা শক্তি। তাই সকল শিক্ষার্থীদের মাঝে দেশপ্রেম জাগ্রত করার মাধ্যমে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে কাজ করে যেতে হবে। তা হলেই আমরা দেশ ও জাতিকে সোনার বাংলাদেশ উপহার দিতে সম্ভব হবো।

কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন ২২নং ওয়ার্ড এর সাবেক কাউন্সিলর ও প্রতিষ্ঠানের কলেজ শাখার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি রোটারিয়ান আবদুল মালেক ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলার মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. শাহ জালাল।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ মীর মো. আবু তাহের। অতিথিদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন গভর্নিং বডির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মো. আবদুল গণি ভূঁইয়া, গভর্ণিং বডির কো-অপ্ট সদস্য মো. সফিকুল আলম,গভর্নিং বডির অভিভাবক সদস্য মাওলানা মো. আবুল বাশার, মো. মেহেদি হাসান, মো. জসিম উদ্দিন চৌধুরী, মো. দেলোয়ার হোসেন এবং সদস্য আছিয়া বেগম, সাবেক সদস্য- মাহবুব আলম মজুমদার, মোতাহের হোসেন চৌধুরী, আফরিন জাহান। পদুয়ার বাজার মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি গাজী সাদেকুর রহমান,বাবু নির্মল ঘোষ, প্রধান শিক্ষক আবদুল কামাল মজুমদার। এছাড়াও প্রতিষ্ঠানে কর্মরত সকল প্রভাষক ও শিক্ষক মন্ডলী সভায় উপস্থিত ছিলেন।

পবিত্র কোরান তেলাওয়াত, গীতা পাঠ ও জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। আলোচনা অনুষ্ঠান সঞ্চালন করেন প্রভাষক মো. মাঈনুদ্দীন খন্দকার এবং প্রভাষক মাহবুব আলম। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সঞ্চালন করে দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী নাজমা ও হাসিনা। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে নৃত্য, নাটিকা, আবৃত্তি ও গান পরিবেশন করে প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা। সম্পাদনা: সুতীর্থ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ