প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ইরাকের ঐতিহাসিক মসুল মসজিদের পুনঃনির্মাণ শুরু হবে আগামী বছর, জানালো ইউনেস্কো

রাশিদ রিয়াজ : ২০১৭ সালে আইএস জঙ্গিরা ইরাকের মসুলে ঐতিহাসিক মসজিদে আল-নুরি ধংস করে। এটি ছিল মসুলের প্রতীকি মসজিদ। ১২শ শতাব্দীর পুরোনো এই মসজিদটির মিনারটি ছিল ডান দিকে কিছুটা বাঁকা। জাতিসংঘের সাংস্কৃতিক সংস্থা ইউনেস্কো ঘোষণা করেছে আগামী বছর থেকেই মসজিদটির পুনঃনির্মাণের কাজ শুরু হবে। ডেইলি সাবা

বিষয়টি নিয়ে ইউনেস্কোর মহাপরিচালক অড্রে আজোউলে ইরাকের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে একটি বৈঠক করেন। এ বৈঠকে ইরাকের সংস্কৃতি মন্ত্রী আব্দুলামির আল-দাফার হামদানি ও মসুলের আঞ্চরিক গভর্নর মানসুর আল-মারিদ উপস্থিত ছিলেন। ইরাকের এ মসজিদটি পুনঃনির্মাণে ইউনেস্কো ১০ কোটি ডলার বরাদ্দ দিয়েছে। আল-নুরি মসজিদ ‘স্পিরিট অব মসুল’ হিসেবে পরিচিত।

ইউনেস্কো মহাপরিচালক বলেন মসজিদটির নির্মাণ কাজ শুরুর একটি নির্দিষ্ট সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। ২০১৪ সালে আল-নুরি মসজিদ থেকে আইএস জঙ্গি প্রধান আবু বকর আল-বোগদাদি খিলাফতের ঘোষণা দেন। কিন্তু নির্বিচারে মানুষ হত্যা, নারী ধর্ষণ, শিশু পাচার, জালানি তেল চুরি থেকে জঘন্য অপরাধের মধ্যে দিয়ে আইএস সন্ত্রাসী গোষ্ঠী ইরাক থেকে সিরিয়া পর্যন্ত তা-ব লীলা চালায়। দুই বছর মসুল শহর দখলে রাখে আইএস জঙ্গি গোষ্ঠী।

এরপর ইরাকের সেনাবাহিনী শহরটি পুনরুদ্ধার করে। জাতিসংঘের উন্নয়ন তহবিলের মধ্যে দিয়ে ভগ্নস্তুপ সরিয়ে মসুল শহরটিকে পুনরায় গড়ে তোলা হচ্ছে। শহরটিতে ফিরে আসা বাসিন্দাদের অধিকাংশ এখনো ক্যাম্পে বসবাস করছে। বিদ্যুৎ, পানি সংযোগ সহ রাস্তা ঘাট পুনঃনির্মাণ করা হচ্ছে। মসজিদ, চার্চ বিশেষ করে বইয়ের দোকানের জন্যে মসুল বিশ^পর্যটকদের কাছে ছিল এক আদর্শ শহর। জাতিসংঘ ছাড়াও মসুলের পুনর্বাসনে আমিরাত ৫ কোটি ডলার ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন প্রায় আড়াই কোটি ডলার সহায়তা দিয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত