প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কমেছে পাট রপ্তানি, নতুন বাজার খোঁজা প্রয়োজন

হ্যাপি আক্তার : পাটের সুদিন ফেরাতে নানা উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। তবে, এরপরও কমছে রপ্তানি। ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশন ৮:০০

উদ্যোক্তারা বলছেন, উৎপাদন খরচ বৃদ্ধি, ভারতের অ্যান্টি ডাম্পিং শুল্কসহ নানা কারণে রপ্তানিতে মন্দাভাব। তবে, সংকট উত্তরণে পণ্যে বৈচিত্র্য আনার পরামর্শ দিচ্ছেন অনেকে।

ইপিবির তথ্য, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে পাট রপ্তানিতে আয় ১০২ কোটি ডলার। আর গত অর্থবছর আয় কমে দাঁড়িয়েছে ৮১ কোটি ডলারে। এর মধ্যে কাঁচা পাট রপ্তানি কমেছে ২৭ শতাংশ, আর পাট পণ্য রপ্তানি কমেছে ৩২ শতাংশ।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে মধ্যপ্রাচ্যের কয়েকটি দেশে পাট রপ্তানি কমেছে। উৎপাদন খরচের প্রভাবে পণ্যের দাম বাড়ায় আগ্রহ কমেছে চীনের। আর ভারতের অ্যান্টি ডাম্পিং শুল্ককও বড় সমস্যা।

জুট অ্যাসোসিয়েশনের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি আরজু রহমান ভ‚ঁইয়া বলেন, আধুনিক মেশিনারিজের অপ্রতুলতা প্রতিযোগিতার বাজারে পাট শিল্পের টিকে থাকা কঠিন করে তুলেছে। ৪০-৫০ বছরের পুরনো মেশিন দিয়ে পাট প্রডাক্ট বইনয়ে বিশ্ব বাজারে টিকে থাকতে পারবে না।

তবে, রপ্তানি বাড়াতে পণ্য উৎপাদনে বৈচিত্র্য আনার বিকল্প নেই বলে মনে করছেন জুট মিলস করপোরেশনের কর্মকর্তা শাহ মোহাম্মদ নাসিম। তিনি বলেন, ভারতের অ্যান্টি ডাম্পিং শুল্কের বিষয়টি সুরাহার চেষ্টা চলছে।

বিশ্বের ৫০টি দেশে পাট ও পাট পণ্য রপ্তানি করে বাংলাদেশ। রপ্তানি বাড়াতে নতুন বাজার খোঁজার প্রয়োজন দেখছে জুট মিলস করপোরেশন। সম্পাদনা : কায়কোবাদ মিলন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত