প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আমাদের এবারের সমঝোতায় সরকারের কোনো ভূমিকা ছিলো না, জোর দাবি জাতীয় পার্টির নেতাদের

বেলাল হোসেন : সদ্যপ্রয়াত এরশাদের রাজনৈতিক দল জাতীয় পর্টিতে অবশেষে কয়েকদিনের ব্যবধানে দুই পক্ষের বিরোধের নিষ্পত্তি হয়েছে। মূলত: রওশন এরশাদ ও জিএম কাদেরের মধ্য ক্ষমতা ভাগাভাগির মধ্য দিয়ে এই বিরোধের অবসান ঘটলো। জিএম কাদের হলেন দলের চেয়ারম্যান এবং রওশন এরশাদ সংসদে বিরোধী নেতা হলেন। জিএম কাদের সংসদে বিরোধী দলের উপনেতা হয়েছেন। বিবিসি বাংলা

মূলত ক্ষমতা ভাগ বাটোয়ারের মাধ্যমে ভাঙ্গনের হাত থেকে রক্ষা পেল জাতীয় পার্টি। পার্টির মহাসচিব রোবরার বনানীর দলীয় কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলনে এই কথা বলেন। রাঙ্গা এদিন বলেন, এখন দল চালাবেন জিএম কাদের এবং সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা হবেন রওশন এরশাদ।

মশিউর রহমান রাঙ্গা বলেন, দুই নেতারই ছিলো অধিকারের প্রশ্ন যে কোনো দলেই এরকম বিরোধ থাকতে পারে। রাঙ্গা বলেন, জাপা দেশে এখন ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করবে। কোথাও কোন সমস্যা নেই। রংপুর তিন আসনে উভয় পক্ষই ঐক্যমতের ভিত্তিতে প্রার্থী চূড়ান্ত করেছেন বলে জানান। তিনি বলেন, বিরোধের কারণে কর্মীদের মধ্যে আস্থার সংকট তৈরি হয়েছে। হতাশায় নিমজ্জিত হয়েছিলেন নেতা কর্মীরা।

এদিকে মিডিয়া কয়েকদিন ধরেই ধারণা দিয়ে আসছিলো, জাতীয় পার্টি স্বাধীনভাবে কতোটা সিদ্ধান্ত নিতে পারে? উল্লেখ্য, জাতীয় পার্টির দুই প্রুপেরই দৌড় ঝাপের প্রমাণ বিদ্যমান সরকারি পর্যায়ে । যেমন জিএম কাদের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিলেন।

রাষ্ট্রবিজ্ঞানী দিলারা চৌধুরী বলেছেন, জাপার কিন্তু আগের মতো প্রভাব নেই। আর এভাবে সরকারের প্রচ্ছন্ন ইঙ্গিতে দুই অংশের মধ্যে সমঝোতা হয়েছে। সরকার যা চাইবে জাতীয় পার্টিকে তেমনই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। অবশ্য দিলারা চৌধুরীর বক্তব্য মানতেও রাজী নন। জাতীয় পার্টির নেতারা। তাদের ভাষ্য, তারা এবার নিজেরাই নিজেদের সমস্যার সমাধান করেছেন, আওয়ামী লীগের কোন ভূমিকা ছিলো না। সম্পাদনা : কায়কোবাদ মিলন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ