প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শার্শায় গৃহবধূকে দলবদ্ধ ধর্ষণ মামলার রিমান্ড শুনানি রোববার , পিবিআইয়ের তদন্ত শুরু

জাহিদুল কবীর : আগামীকাল রোববার যশোর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (শার্শা) আদালতে এ মামলার শুনানি হবে বলে জানিয়েছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআইয়ের পরিদর্শক মোনায়েম হোসেন খান।

এর আগে ৫ সেপ্টেস্বর বৃহস্পতিবার আদালতে রিমান্ড ও ডিএনএ টেস্টের আবেদন করা হয়। পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। শুক্রবার (৬ সেপ্টেম্বর) মামলা সংক্রান্ত যাবতীয় নথি হাতে পেয়েই কাজ শুরু করে। মামলায় চার আসামির তিনজন গ্রেপ্তার হয়েছে।

অধরা রয়েছে একজন অজ্ঞাত আসামি। সেই আসামি কে, সেটি নিয়ে ধুম্রজাল আছে। ভিকটিম প্রথমে বলেছিলেন, প্রধান অভিযুক্ত এসআই খায়রুলকে চিনতে পারেননি। পরে দাবি করেছেন, ভয়ে এসআই খায়রুলের নাম বলতে পারেননি। ফলে মামলার অজ্ঞাত আসামি শনাক্ত করায় এখন বড় চ্যালেঞ্জ। এজন্য অপরাধী শনাক্তে ডিএনএ টেস্টের উদ্যোগ নিয়েছে পিবিআইয়ের তদন্ত কর্মকর্তা। এবিষয়ে আদালতে আবেদন করা হয়েছে।

পিবিআই যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এমকেএইচ জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, মামলার ডকেট হাতে পেয়েছি। ইতোমধ্যে আমরা তদন্ত কাজ শুরু করেছি। অপরাধী সনাক্তে ডিএনএ টেস্টসহ যা যা করণীয় সব কিছুই করা হবে।

জানা যায়, ২সেপ্টেম্বর শার্শা উপজেলার লহ্মণপুর এলাকায় ওই গৃহবধূর বাড়িতে গভীর রাতে যায় এসআই খায়রুল, সোর্স কামরুলসহ চারজন। তারা ওই গৃহবধূর কাছে পঞ্চাশ হাজার টাকা দাবি করেন। টাকা না দেওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে এসআই খায়রুল ও কামরুল তাকে ধর্ষণ করেন বলে ওই গৃহবধূ অভিযোগ করেন। ৩ সেপ্টেম্বর ভিকটিম শার্শা থানায় তিনজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত একজনের নামে মামলা করেন। মামলাটি বৃহস্পতিবার পুলিশ হেড কোয়ার্টার্সের নির্দেশে তদন্তের দায়িত্ব পেয়েছে পিবিআই যশোর। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নিযুক্ত করা হয়েছে ইনসপেক্টর শেখ মোনায়েম হোসেনকে। দায়িত্ব পেয়েই ৬ সেপ্টেম্বর তিনি ওই গৃহবধূ বাড়ি পরিদর্শন ও জবানবন্দি গ্রহণ করেছেন।

তদন্ত কর্মকর্তা পরিদর্শক মোনায়েম হোসেন খান বলেন, ভিকটিমের সোয়াপ কালেকশন করে ডিএনএ প্রোফাইলের জন্যে সিআইডি হেড কোয়ার্টারে পাঠানো হয়েছে। তদন্তের অংশ হিসেবে ডাক্তারি পরীক্ষায় পাওয়া ধর্ষণের আলামতের সঙ্গে গ্রেফতার তিনজনের ডিএনএ টেস্ট করাতে ৫ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার আদালতে আবেদন করা হয়েছে।

প্রধান অভিযুক্ত এসআই খায়রুল আলম প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এটি তদন্তের বিষয়। তদন্তে কারো যদি সম্পৃক্ততা থাকলে পরবর্তীতে আপনাদের জানানো হবে। সম্পাদনা : মুরাদ হাসান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ