প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বাকি খান, বিচারও করেন ঢাবির ছাত্রলীগ নেতা

ঢাবি প্রতিবেদক: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব স্যার সলিমুল্লাহ মুসলিম(এসএম) হলে আবু সায়েম মো. সানাউল্লাহ নামের এক ছাত্রলীগ নেতার কাছে বকেয়া টাকা চাওয়ায় হলের দোকানদারকে মারধর ও দোকান বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। আবু সায়েম মো. সানাউল্লাহ ছাত্রলীগের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক এবং এসএম হলের আবাসিক শিক্ষার্থী। ৬ সেপ্টেম্বর(শুক্রবার) সকালে উক্ত হলে এ ঘটনা ঘটে। তবে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা বলছে দোকানদার বেয়াদবি করেছে, তাই বিচার করেছি এছাড়া আর কিছু না।

জানা যায়, এসএম হলের দোকানদার আসগর আলী আবু সায়েম মো. সানাউল্লাহর কাছে দোকানের বকেয়া বাবদ ৫ হাজার টাকা পান। ওই টাকা পরিশোধ করতে বললে সায়েম দোকানদারের সাথে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে দোকানদারের গায়ে হাত তোলেন সায়েম এবং দোকান বন্ধ করে দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে দেকানদার আসগর আলী বলেন, ‘আমার দোকান বন্ধ করে দিয়েছিল। পরে হল ছাত্র সংসদের ভিপি দোকান খুলতে বলছে। এখন আবার খুলছি।’

জানা যায়, সায়েমের কাছে এসএম হলের আরও একজন দেকানদার মামুন বকেয়া বাবদ ১৩ শ টাকার মতো পান। কিন্তু ওই টাকা তিনি পরিশোধ করছেন না।

এ ঘটনার পূর্বে মাস দুয়েক আগে এসএম হলের পাশ্ববর্তী ফুলার রোডে ছেলে-মেয়ে একসাথে বসে থাকতে দেখে সায়েম তাদের মোবাইল ও বাইক আটকে রাখে। পরে বিকাশের মাধ্যমে সাড়ে ২২ হাজার টাকা দিয়ে তা ছাড়িয়ে নিতে হয়। বিষয়টি জানাজানি হলে ১৫ হাজার টাকা ফেরত দেন।

এসএম হলের কয়েকজন আবাসিক শিক্ষার্থীর সাথে কথা বললে তারা জানান,‘সায়েম এসএম হলের ক্যান্টিনসহ হলের মধ্যকার দুটি দোকান ও হলের পাশে পলাশী মোড়ের চায়ের দোকান থেকে প্রায়ই টাকা না দিয়ে খাবার খান। দোকানদার টাকা চাইলে পরে দেওয়ার কথা বলেন, কিন্তু পরে আর টাকা আর পরিশোধ করেন না।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এসএম হলের শিক্ষার্থীরা বলেন,‘এটা সবারই জানা সায়েম ভাই সব জায়গায় ফ্রি খান। তিনি আমাদের হলে এডওয়ার্ড সায়েম নামে পরিচিত। হলে উঠার পর থেকে অনেক দিন যাবৎ এ ঘটনা দেখছি।’

অভিযোগের বিষয়ে জানতে সায়েম এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন,‘দোকানদার বেয়াদবি করেছে, তাই বিচার করেছি এছাড়া আর কিছু না। বাকি টাকির বিষয় কিছু না।’

হলে কোনো সমস্যা ঘটলে ছাত্রলীগ তার বিচার করতে পারে কিনা জানতে চেয়ে এস এম হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. মাহবুবুল আলম জোয়ার্দার এর সাথে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।’

সূত্রের তথ্যমতে, আবু সায়েম মো. সানাউল্লাহ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনের সমর্থক। এর আগে এসএম হল ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন।
এ বিষয়ে ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত