প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সৌদি আজোয়া খেজুর বাড়ির ছাদে

সৌদি আরবের আজোয়া খেজুর এখন দিনাজপুর শহরের বালুয়াডাঙ্গা শহীদ মিনার মোড় এলাকার বাসিন্দা মাহবুবুর রহমানের বাড়ির ছাদে। প্রাথমিকভাবে সফল ওই খেজুর গাছে থোকায় থোকায় ঝুলছে আজোয়া খেজুর। সফল হওয়ায় এ জাতের খেজুরের চারা উৎপাদনে বাড়ির ছাদেই মিনি নার্সারি গড়ে তুলেছেন মাহবুব। বাড়ির ছাদে রোপণ উপযোগী ৬শতাধিক চারা প্রস্তুত রয়েছে। এ ছাড়াও ৩ শতাধিক চারা উৎপাদন প্রক্রিয়াধীন। ৪ বছরের মধ্যে গাছে ফলন হয়। বছরের যে কোনো সময় চারা লাগানো যায়। ফেব্রুয়ারি মাসের দিকে গাছে ফুল আসে। তবে খেয়াল রাখতে হয়, যেন গাছের গোড়ায় পানি না জমে। বাংলাদেশ প্রতিদিন

মাহবুব জানান, তার বাবা প্রায় ৩৫ বছর মদিনায় কর্মরত ছিলেন। অবসরের পর তিনি মদিনা থেকে আজোয়া জাতের খেজুরের বিচি সংগ্রহ করেন। বাবার আনা খেজুরের বিচি মা শামসুন নাহার একটি মাটির পাত্রে রোপণ করেছিলেন। এরপর থেকে শুরু হয় আমার কাজ ।

তিনি আরও জানান, একটি গাছ বিচি থেকে রোপণ উপযোগী করতে ব্যয় হয় প্রায় দেড়হাজার টাকা। ২০টি চারা রোপণ করলে সেই বাগানে একটি পুরুষ গাছ রোপণ করতে হবে পরাগায়নের জন্য। প্রথমে একটি বিচ মাটির পাত্রে রোপণ করতে হয়। তারপর গাছের চারা ৪ থেকে ৬ ইঞ্চি হলেই অন্য একটি বড় মাটির পাত্রে স্থনান্তর করতে হয়।

টিএ/এমআই

 

 

সর্বাধিক পঠিত