প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘প্রতিহিংসা বন্ধ করে অর্থনীতির হাল ফেরান’, মোদিকে পরামর্শ মনমোহনের

দেশের বর্তমান অর্থনীতির পরিস্থিতি অত্যন্ত উদ্বেগজনক। মনে করছেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী তথা বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা মনমোহন সিং। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর দাবি, মোদি সরকারের সার্বিক অব্যবস্থাই অর্থনীতির বর্তমান বেহাল দশার কারণ। অর্থনীতি এখনও নোট বাতিলের হঠকারী সিদ্ধান্ত, এবং ভুলভাবে জিএসটি লাগু করার ধাক্কা সামলে উঠতে পারেনি।

দিন দুই আগেই জানা গিয়েছে, দেশের সার্বিক বৃদ্ধির হার কমতে কমতে পাঁচ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। একসময় বিশ্বের দ্রুততম উন্নয়নশীল অর্থনীতির খেতাব পাওয়া ভারত এখন অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছে। এমনকী এশিয়ার একাধিক দেশও আর্থিক বৃদ্ধির হারে ভারতকে টেক্কা দিচ্ছে। ডলারের তুলনায় দিন দিন কমছে টাকার দাম। বাজারে চাহিদার অভাবে ভুগছে অটোমোবাইল সেক্টর থেকে শুরু করে ফুড প্রসেসিং সেক্টর পর্যন্ত। ডলারের তুলনায় ক্রমশ কমছে টাকার দাম। এমনকী বাংলাদেশের টাকাও ভারতের রূপির তুলনায় ভাল পারফর্ম করছে এশিয়ার বাজারে। সোনার দামও দশগ্রাম পিছু প্রায় ৪০ হাজার টাকায় পৌঁছে গিয়েছে। অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে রিজার্ভ ব্যাংকের গচ্ছিত আমানতেও হাত দিতে হচ্ছে কেন্দ্রকে। যা উদ্বিগ্ন করেছে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীকে। অর্থনীতির বর্তমান হাল নিয়ে মুখ খুলেই মোদি সরকারের সার্বিক অব্যবস্থাকে দূষলেন মনমোহন। বললেন, “শেষ ত্রৈমাসিকের পাঁচ শতাংশ বৃদ্ধির হার ইঙ্গিত করছে, আমরা দীর্ঘস্থায়ী অর্থনৈতিক সংকটের দিকে এগোচ্ছি।”

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী বলছেন, “ভারতের অর্থনীতি এভাবে অধোগতিতে চলতে পারে না। আমি সরকারের কাছে অনুরোধ করব প্রতিহিংসার রাজনীতি বন্ধ করুন এবং সমস্ত অর্থনীতিবিদদের পরামর্শ নিয়ে অর্থনীতির হাল ফেরানোর চেষ্টা করুন। অর্থনীতিকে এই মনুষ্যসৃষ্ঠ সমস্যা থেকে উদ্ধার করুন।” উল্লেখ্য, মনমোহন সিং নিজেই বিশ্বের প্রথম সারির অর্থনীতিবিদদের অন্যতম হিসেবে গণ্য। তাঁর হাত ধরেই ভারতীয় অর্থনীতির উদারীকরণ হয়। মনমোহন প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন ভারতের আর্থিক বৃদ্ধি ১০ শতাংশ ছাড়িয়েছিল। যা এখনও রেকর্ড। সংবাদ প্রতিদিন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত