প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বাউফলে আমন ধান রোপণে ব্যস্ত কৃষকরা

খলিলুর রহমান : আমন রোপণ নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে পটুয়াখালীর বাউফলের পনেরটি ইউনিয়নের কৃষকরা। ভাদ্র মাসটি হচ্ছে কৃষকের জমিতে আমন রোপণের সবচেয়ে উপযুক্ত সময়। তাই ব্যস্ততায় সময় কাটাচ্ছেন প্রান্তিক চাষিরা। হালের বলদের পরিবর্তে ট্রাক্টর দিয়েই জমি চাষ করছেন বেশিরভাগ কৃষক। শ্রাবণ মাসে অতিবৃষ্টি ও নদীর পানি বৃদ্ধির কারণে কৃষকরা জমি চাষ করতে পারেনি। তাই স্বল্প সময়ের মধ্যে জমি চাষ করে আমন রোপণ করতে হবে বলে ট্রাক্টর ও শ্রমিক সমস্যায় পড়ছে কৃষকরা। অন্যদিকে বর্তমানে অনাবৃষ্টির কারণে উঁচু জমিতে পানি না থাকায় কিছুটা বিঘ্ন ঘটছে আমন রোপণে।

বাউফল উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নের কৃষকের প্রধান ফসল হচ্ছে আমন ধান। এ আমন ধান রোপণ করে থাকে শ্রাবণ ও ভাদ্র মাসে। কৃষকের প্রধান ফসল আমন ধান রোপনের সময় অতিবৃষ্টি কিংবা অনাবৃষ্টি যেকোনো একটি দুর্যোগের শিকার হয়ে থাকে। প্রতি বছরের ন্যায় এ বছর শ্রাবণ মাসে অতিবৃষ্টি ও নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় এ মাসে আমন রোপণ করতে পারেনি কৃষকেরা। অন্যদিকে নিচু জমিতে পানি থাকলেও স্লুইসগেট বন্ধ থাকায় পানি নামতে পারছে না ফলে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে।

প্রান্তিক কৃষক আপ্তার আলী খান বলেন, প্রায় চারশ শতাংশ জমিতে আমন রোপণ করবো। শ্রাবণ মাসে অকিরিক্ত পানির কারণে বীজ রোপণ করতে পারিনি। এখন পানি কমে যাওয়ায় স্বল্প সময়ের মধ্যে সকলেই জমি চাষ করে আমন রোপণ করায় ব্যস্ত। ৩.২৫ শতাংশ জমি রোপণ করতে ১২০-১৫০ টাকা মজুরি দিতে হয়। অল্প দিনের মধ্যে সকলের একসাথে জমি চাষ করার কারণে সময়মতো প্রয়োজনীয় শ্রমিক পাওয়া যাচ্ছে না। তাই দিন রাত তার আমন রোপণে ব্যস্ত থাকতে হচ্ছে। সম্পাদনা : মুরাদ হাসান

সর্বাধিক পঠিত