প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কাশ্মীরে হাজারো নাগরিককে আটক ও যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন থাকায় মার্কিন কংগ্রেস সদস্যদের উদ্বেগ

লিহান লিমা: ভারত-শাসিত জম্মু ও কাশ্মীরে হাজারো নাগরিককে গ্রেপ্তার করে ডিটেনশন ক্যাম্পে আটকে রাখার সরকারের পরিকল্পনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন মার্কিন হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে ভারতীয় বংশোদ্ভুত সদস্য প্রমিলা জয়পাল। ডন, ন্যাশনাল হেরাল্ড।

এই সপ্তাহে নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে তিনি লেখেন, ‘কাশ্মীরের ২ হাজারেরও বেশি নাগরিককে আটকের বিষয়টি গভীরভাবে উদ্বেগের। মুসলিমদের ডিটেনশন ক্যাম্পে আটক রাখার ভারত সরকারের পরিকল্পনার মধ্যে এটি সবচেয়ে আলোচিত। ভারত ভিন্নমতকে দমন করতে ভয়ের পরিবেশ ও উগ্র-জাতীয়তাবাদ কাজে লাগাচ্ছে।’

অপর এক টুইটে তিনি বলেন, ‘পরিস্থিতি যতই জটিল হোক না কেন গণতন্ত্রের জন্য স্বচ্ছতা প্রয়োজন, দরকার জনসভার স্বাধীনতা ও বাক-স্বাধীনতা।’ প্রমিলা জয়পাল কংগ্রেসে মানবাধিকার নিয়ে সোচ্চার থাকার জন্য এর পূর্বেও আলোচিত হয়েছেন। মার্কিন কংগ্রেসের হাউস ইন্টিলিজেন্স কমিটির চেয়ারম্যান অ্যাডাম স্কিফ বলেন, ‘কাশ্মীরের পরিস্থিতি অনেক উদ্বেগজনক, কোন ধরনের অভিযোগ ছাড়াই হাজারো সাধারণ নাগরিককে আটক করা হচ্ছে, বর্হিবিশ্বের সঙ্গে এই অঞ্চলের কোন যোগাযোগ নেই। বাক-স্বাধীনতার মতো মৌলিক মানবাধিকার ও তথ্যে প্রবেশের অধিকারকে অবশ্যই সুরক্ষা করতে হবে।’ এই দুই কংগ্রেস সদস্যই তাদের টুইটে কাশ্মীরে গণহারে গ্রেপ্তার, ৫ আগস্ট থেকে কারফিউ আরোপ, রাজনৈতিক নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষকে গ্রেপ্তার নিয়ে নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদন শেয়ার করেন।

আরেক মার্কিন কংগ্রেস সদস্য পিটার কিং নিউইয়র্কে নিযুক্ত কনসেল জেনারেল অব ইন্ডিয়ার সঙ্গে দেখা করেন। তিনি বলেন, ‘আমি তাকে বলেছি আমি ভারতে অবস্থান বুঝতে পারছি। কিন্তু যেহেতু ভারত ও পাকিস্তান দু’ দেশই পারমাণবিক শক্তিসম্পন্ন তাই এক্ষেত্রে কূটনৈতিক সমাধানে আসতে হবে। রিপাবলিকান সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম টুইট বার্তায় বলেছেন, পাকিস্তানের সঙ্গে পরিস্থিতি আরো খারাপ হওয়ার পূর্বে ভারতকে অবশ্যই কাশ্মীর সিদ্ধান্তের ব্যাখ্যা দিতে হবে। কংগ্রেস সদস্য ডোন বিয়ার বলেছেন, ‘কাশ্মীর পরিস্থিতি, বিশেষ করে সেখানে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন অবস্থা নিয়ে তিনি গভীর উদ্বিগ্ন।’ সম্পাদনা : ইকবাল খান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত