প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রোহিঙ্গা নির্যাতনের দায়ে মিয়ানমারের বিচার শুরুর সুপারিশ করেছে এইচআরডাব্লিউ

আসিফুজ্জামান পৃথিল : রোহিঙ্গাদের পুরো জাতিগোষ্ঠীতেই অদৃশ্য করে দিতে চেয়েছিলো মিয়ানমারের জান্তারা। আন্তর্জাতিকভাবে প্রবল সমালোচনার মুখে পরলেও এরজন্য যথেষ্ট সাজা পায়নি দেশটি। শুক্রবার রোহিঙ্গা নির্যাতন ও নির্বাসনের ২ বছর পূর্তি উপলক্ষে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই কথা বলেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ। তারা বলছে, এই বিষয়ে এখনও যথেষ্ঠ ভুমিকা নিতে পারে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত-আইসিসি।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচ-এইচআরডাব্লিউ বলছে, দাতা এবং সচেতন মহলকে মিয়ানমারের উপর চাপ বাড়াতেই হবে যেনো দেশটি তাদের এই নাগরিকদের মৌলিক অধিকার রক্ষা, ক্ষতিগ্রস্থদের আন্তর্জাতিক বিচার পাইয়ে দেয়া এবং নিজ দেশে শরণার্থীদের নিরাপদ প্রত্যাবাসন নিশ্চিত করে। এই প্রত্যাবাসন হতে হবে স্বেচ্ছা, নিরাপদ এবং সম্মানজনক। কাল ২৫ আগস্ট রোহিঙ্গাদের উপর চালানো বর্বর নির্যাতনের ২ বছর পূর্ণ হচ্ছে। এইচআরডাবিøউ এর এশিয়া অঞ্চলের সহ পরিচালক ফিল রবার্টসন বলেন, ‘মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের দ্বারা রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর উপর চালানো জাতিগত নিধনের ২ বছর হয়ে গেলো। পরে এই নির্যাতন লুকাতে রোহিঙ্গাদের বাড়ি ঘরের উপর বুলডোজার চালিয়ে সব প্রমাণ নিশ্চিহ্ন করা হয়েছে।’

এইচআরডাব্লিউ বলছে, রাখাইন রাজ্যে পরিস্থিতির উন্নতিকল্পে কোনো ভুমিকাই নেয়নি মিয়ানমার সরকার। মিয়ানমারে যে ৫ লাখ রোহিঙ্গা এখনও আছেন, নিরাপত্তা বাহিনী তাদের চতুর্দিক দিয়ে বিচ্ছিন্ন করে রেখেছে। তাদের স্বাধীনভাবে চলাচলের কোনো সুযোগ নেই। তাদের মৌলিক স্বাধীনতা থেকে বঞ্চিত করছে সরকার। টেকসই জীবনমান অর্জনের থেকে তাদের আটকে রাখা হয়েছে। তারা প্রয়োজনীয় খাবার, টেকসই আবাসন, স্বাস্থ্যসেবা এবং শিক্ষার কিছুই পাচ্ছেনা। এতো কিছুর করেও তারা পার পেয়ে যাচ্ছে। নাগরিকত্বের অধিকার থেকে একটি সম্পূর্ণ গোষ্ঠীকে বঞ্চিত করে তাদের রাষ্ট্রহীন করে রাখা হয়েছে। যারা বেঁচে আছে সম্পূর্ণভাবে বাংলাদেশের দয়ায়।
আইসিসির ভুমিকা এই বিষয়ে আরো কঠোর হওয়া উচিৎ বলে মনে করে এইচআরডাবিøউ। তারা বলছে মিয়ানমারের যদি এই অপরাধের শাস্তি না হয় তবে বিশ^জুড়েই এই ধরণের জঘন্য অপরাধের পরিমাণ বাড়তেই থাকবে। যা কোনোভাবেই হতে দেয়া উচিৎ নয়। মিয়ানমার রোম ঘোষণায় স্বাক্ষর করেনি। তবে বাংলাদেশ করেছে। আর বাংলাদেশও এই ঘটনার অন্যতম ক্ষতিগ্রস্থ পক্ষ। এই বিষয়টি আমলে নিয়েই মিয়ানমারের বিচার শুরুর সুপারিশ করেছে এইচআরডাব্লিউ। সম্পাদনা : ইকবাল খান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত