প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আগামী মাসেই ভারতের হাতে ৩৬টি রাফায়েল তুলে দিচ্ছে ফ্রান্স

রাশিদ রিয়াজ : ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জানিয়েছেন, ফ্রান্সের সঙ্গে বৈঠক ফলপ্রসূ হয়েছে। তিনি জানান, আগামী মাসে ফ্রান্স প্রথম দফায় ৩৬টি রাফাল যুদ্ধবিমান ভারতের হতে তুলে দেবে। বালাকোট অভিযানের পরে ভারতীয় বিমানের জন্য আকাশসীমা বন্ধ করে দিয়েছিল পাকিস্তান। সম্প্রতি সেই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেছে ইসলামাবাদ। এদিন পাক আকাশসীমা দিয়েই ফ্রান্সে যান মোদী। প্রধানমন্ত্রীর ত্রিদেশীয় সফরের এদিন ফ্রান্স দিয়ে শুরু হয়েছে। এর পর বাহরাইন এবং সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে যাবেন মোদী। টাইমস অব ইন্ডিয়া

ভারতের তরফ থেকে কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে পাকিস্তানের সঙ্গে কোনো আলোচনার ইচ্ছে না থাকলেও জাতিসংঘের পর পশ্চিমা দেশগুলো আলোচনাতেই এ সংকটের পথ খুঁজতে বলছে। সর্বশেষ প্যারিসে পৌঁছে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সঙ্গে কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে দীর্ঘক্ষণ ধরে আলোচনা করেন মোদী। কিন্তু এধরনের আলোচনা পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান মোদীর সঙ্গে করতে চাইলেও ভারতের পক্ষ থেকে তাতে কোনো সাড়া মিলছে না। ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং বলে দিয়েছেন আলোচনায় বসতে হলে পাকঅধিকৃত কাশ্মীর নিয়ে আলোচনায় বসতে হবে। ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ তার আগে বলেছেন, দিল্লি পাক অধিকৃত কাশ্মীরকেও মুক্ত করবে। আর পাকিস্তানের তরফ থেকে বলা হচ্ছে শেষ বুলেটটি না ফুরোনো পর্যন্ত কাশ্মীর ইস্যুতে কোনো আপোস হবে না। এমন পরিস্থিতিতে জাতিসংঘ কোনো কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করতে না পারায় কাশ্মীরে যুদ্ধ কিংবা হত্যাযজ্ঞ শুরু হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন আন্তর্জাতিক বিশ্লেষকরা।

বৃহস্পতিবার প্রায় দেড় ঘণ্টা ধরে মোদী ও ম্যাক্রোঁর সঙ্গে কথা হয়। অন্যদিকে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন কাশ্মীর ইস্যুটি নিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনের সব প্লাটফর্মেই যাবে তার দেশ। কার্যত কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে ভারত-পাকিস্তান বাকযুদ্ধের পর চলছে কূটনৈতিক যুদ্ধ। ভারত ইতিমধ্যে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে পানি যুদ্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে।

ভারতের মিডিয়াগুলো বলছে কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা রদ নিয়ে এ বার ফ্রান্সের সমর্থনও আদায় করে নিল ভারত। দু-দিনের সফরে বৃহস্পতিবারই ফ্রান্সে পৌঁছেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। প্যারিসের চার্লস ডি গল বিমানবন্দরে মোদীকে স্বাগত জানাতে অনাবাসী ভারতীয়রা উপস্থিত ছিলেন। তাহলে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে আলোচনার কথা বলছেন কেনো। প্যারিসে পৌঁছে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সঙ্গে কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে দীর্ঘক্ষণ ধরে আলোচনা করেন মোদী। কাশ্মীরকে কেন্দ্র করে, ভারতের উপর চাপ বাড়াতে পাকিস্তান যে কূটনৈতিক প্রচার চালাচ্ছে, আলোচনায় সে প্রসঙ্গও আসে।

জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ সুবিধা প্রত্যাহারের পরে ভারতের বিদেশ নীতি এখন কাশ্মীরকে কেন্দ্র করেই আবর্তিত হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল থেকে বিদেশমন্ত্রী জয়শঙ্কর, এমনকী, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীরও মূল উদ্দেশ্য হল, কাশ্মীর প্রশ্নে বিশ্বের শক্তিধর রাষ্ট্রগুলিকে পাশে পাওয়া।

কাশ্মীর নিয়ে আলোচনার পরে যৌথ বিবৃতি দেন দুই দেশের রাষ্ট্রপ্রধান। ফরাসি প্রেসিডেন্ট বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কাশ্মীর এবং কাশ্মীরের পরিস্থিতি নিয়ে আমাকে বিস্তারিত ভাবে জানিয়েছেন। আমি বলেছি, ভারত এবং পাকিস্তানকে আলোচনা করে সমাধান সূত্র বার করতে হবে। এখানে তৃতীয় পক্ষের কোনও জায়গা নেই।

ফরাসি প্রেসিডেন্টের মতে, উপত্যকায় উত্তেজনা তৈরি করা ঠিক হবে না। তার কথায়, কাশ্মীরে শান্তি বজায় রাখা জরুরি। আমরা চাই, শান্তি এবং আলোচনা। আমি কয়েক দিনের মধ্যেই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলব। তাকে জানাব, কাশ্মীর নিয়ে দু’পক্ষ আলোচনায় বসুক।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত