প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

৪ ঘন্টার চেষ্টায় বস্তির আগুন নিয়ন্ত্রণে, চলছে উদ্ধার তৎপরতা

সুজন কৈরী ও রেজা মাহমুদ : রাজধানীর মিরপুর ৭ নম্বর সেকশনের রূপনগর থানার পেছনে চলন্তিকার মোড় সংলগ্ন ঝিলপাড় বস্তিতে লাগা আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। ফায়ার সার্ভিসের ২৪টি ইউনিট কাজ করে প্রায় চার ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে। আগুনে পুড়ে গেছে বস্তিটির ৯৫ শতাংশ ঘর। আগুনের কারণ ও ক্ষয়ক্ষতি জানতে তদন্ত কমিটি গঠণ করা হয়েছে।

শুক্রবার রাত ১০টার পর ঘটনাস্থলের পাশে ফায়ার সার্ভিসের কমান্ড পোস্টে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. তরুণ কান্তি শিকদার সাংবাদিকদের বলেন, আগুনের ঘটনার কারণ উদঘাটনে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তবে কত সদস্য বিশিষ্ট তা পরে জানানো হবে। সন্ধ্যা ৭টা ২২ মিনিটে আগুনের সূত্রপাত। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ৭টা ২৮ মিনিটে ঘটনাস্থলে পৌছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে কাজ শুরু করে। আগুনে চারজন আহত হয়েছেন। তাদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি। তিনি বলেন, আগুন নেভাতে সিটি করপোরেশন এবং ওয়াসার পক্ষ থেকে পানি দেয়া হয়েছে। ঘটনাস্থলে অনেকেই সহযোগিতা করেছে। তবে উৎসুক জনতা চারপাশে দাঁড়িয়ে থাকায় আগুন নেভানোর কাজে ব্যাঘাতও ঘটিয়েছে।

এদিকে ফায়ার সার্ভিস পরিচালক (অপারেশনস ও মেইনটেন্যানস) লে. কর্নেল জিল্লুর রহমান বলেন, ২৪টি ইউনিট কাজ করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছে। আগুনে বস্তির ৯৫ শতাংশ ঘর পুড়ে গেছে। এছাড়া কেউ নিহত বা নিখাঁজ রয়েছে কিনা তা তাৎক্ষণিকভাবে বলা যাচ্ছে না। তিনি বলেন, আশে পাশে কোথাও কোনো পানির উৎস ছিলো না। আমাদের নিজস্ব ব্যবস্থাপনা এবং বিভিন্ন বাসা বাড়ি থেকে পানি সংগ্রহ করে আগুন নিয়ন্ত্রনের কাজ করতে হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক দীলিপ কুমার সাহা জানান, ঝিলের ওপরে কাঠ, বাঁশ এবং চাটাই ও টিন দিয়ে ঘরবাড়িগুলো করা ছিল। আগুন লাগার পরপরই তা দ্রæত ছড়িয়ে পড়ে। ঝিলে পানি থাকায় আমাদের সেখানে ঢুকতে বেগ পেতে হয়েছে। আশেপাশের গার্মেন্টস ফ্যাক্টরি থেকেও পানি পেয়েছি। এখন পর্যন্ত কারোও নিখোঁজ থাকার কথা জানায়নি কোনো পরিবার। বস্তির গলি সরু থাকায় গাড়ি ভেতরে ঢোকানো যায়নি। মেইন সড়কে গাড়ি রেখে পাইপ টেনে পানি নেয়া হয়েছে।
শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টা ২২ মিনিটে রূপনগর থানার পেছনে ঝিলপাড় বস্তিতে আগুন লাগে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের প্রথমে সাতটি ইউনিট গিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করে। ব্যাপকতা দেখে পরে আরো ইউনিট বাড়ানো হয়। সম্পাদনা : আহমেদ শাহেদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত