প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সফরপুর মাদ্রাসায় পুনর্মিলনী ও শোক দিবসের আলোচনা সভা

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক: ফেনী জেলার সোনাগাজী উপজেলার আমিরাবাদ ইউনিয়নের সফরপুর ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসায় সাবেক ছাত্রদের ঈদ পুনর্মিলনী ও শোক দিবসের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার সকাল ১০টায় মাদ্রাসা অডিটোরিয়ামে মাদ্রাসার প্রাক্তন ছাত্র সংস্থার এ আয়োজনে মাদ্রাসার তিন শতাধিক সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থী অংশ নেন।

মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক মাও. মনির আহম্মদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সোনাগাজী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন মাহমুদ লিপটন। ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্তিকা বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মফিজুর রহমান জাহাঙ্গীর, ডিভাইন গ্রুপের ম্যানেজিং ডিরেক্টর এস এম হাবিবুর রহমান, আমিরাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জহিরুল আলম জহির, সিলোনিয়া মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাও. গিয়াস উদ্দিন, সফরপুর ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাও. নুরুল আবছার, প্রাক্তন ছাত্র সংস্থার উপদেষ্টা নুরুল আমিন টিপু, মাদ্রাসার সাবেক ছাত্র চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আবু হানিয়া নোমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নুর হোসেন ইমন প্রমুখ অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক প্রফেসর ড. মফিজুর রহমান জাহাঙ্গীর বলেন, মাদ্রাসা শিক্ষার্থীরা আজ কোনোভাবেই পিছিয়ে নেই। তারা ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার থেকে শুরু করে সব ধরনের পেশায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছেন। তিনি রাসূলের শিক্ষায় উদ্বুদ্ধ হয়ে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞান শিক্ষার প্রতি গুরুত্ব দেন। পাশাপাশি যৌতুকসহ সামাজিক বিভিন্ন কুসংস্কার প্রতিরোধে এসব শিক্ষার্থীদের ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।

আমিরাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জহিরুল আলম জহির বলেন, অত্র অঞ্চলের শিক্ষার প্রসারে সফরপুর ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসা অবদান রেখে যাচ্ছে। এ মাদ্রাসার ছাত্ররা দেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় অধিষ্ঠিত হয়ে দেশ গঠনেও ভূমিকা রাখছেন। এ মাদ্রাসা সংশ্লিষ্ট সবাইকে এলাকার উন্নয়ন, মাদক দূরীকরণ ও এলাকায় চুরি ডাকাতি প্রতিরোধে এগিয়ে আসারও আহ্বান জানান তিনি।

সোনাগাজী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন মাহমুদ লিপটন বলেন, আধুনিক ও যুগোপযোগী শিক্ষার প্রতি গুরুত্ব দিয়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাধারণ ও মাদ্রাসা উভয় শিক্ষার প্রতি সমানভাবে গুরুত্ব দিয়েছেন। তার ‘আমার গ্রাম, আমার শহর’ কর্মসূচির অংশ হিসেবে চিকিৎসা, শিক্ষাসহ আধুনিক শহরের সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা এখন গ্রামে বসেই পাওয়া যাচ্ছে। বঙ্গবন্ধু কন্যার বৈষম্যহীন ও অন্তর্ভুক্তিমূলক নীতির কারণে সমাজের কোনো অংশই এখন আর পিছিয়ে নেই। তিনি মুসলিম বিশ্বের বিভিন্ন সমস্যার কথা উল্লেখ করে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের যেন কেউ সংকীর্ণ দলীয় স্বার্থে ব্যবহার করতে না পারেন, সেদিকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে সবার প্রতি আহ্বান জানান।

সম্পাদনা: অশোকেশ রায়

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত