প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মঈন খানের বাসায় কূটনীতিকদের নৈশভোজ

জান্নাতুল পান্না ও আরিফা রাখি : মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী আবদুল মঈন খানের বাসায় বিভিন্ন দেশের কূটনীতিক ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা ঈদ পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন। পরে নৈশভোজে অংশ নেন তারা।

বিএনপির দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে, মঈন খানের গুলশান-২ এর বাসায় এ নৈশভোজে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র ও অস্ট্রেলিয়ার হাইকমিশনার, জার্মানি, ফ্রান্স, সুইডেন, সুইজারল্যান্ডসহ বিভিন্ন দেশের কূটনীতিক এবং জাতিসংঘের প্রতিনিধিরা অংশ নেন। এছাড়া ছিলেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শরিক দল জেএসডির সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না ও গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী। রাত ১০টার পর কূটনীতিকদের এ মিলনমেলা শেষ হয়।

অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী জানান, নির্দিষ্ট কোনো এজেন্ডা ছিল না। তবে সার্বিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে।
সূত্র জানায়, বৈঠকে লন্ডন সফরকালে বিবিসি বাংলাকে দেয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাক্ষাৎকারে উঠে আসা বিষয়গুলো ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

অন্য একটি সূত্র জানায়, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে একাদশ সংসদ নির্বাচন বাতিল করে পুনর্নির্বাচনের বিষয়টিও আলোচনায় নিয়ে আসা হয়। তবে কূটনীতিকরা এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো কিছু বলেননি।

বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান জানান, ড. মঈন খানের বাসায় কূটনীতিকদের ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় ছিল।
বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার আগে প্রতি ঈদেই কূটনীতিকদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করতেন।গত বছর থেকে দুর্নীতির মামলায় সাজা খাটছেন তিনি। খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মঈন খান কূটনীতিকদের নিয়ে শুভেচ্ছা বিনিময়ের প্রথাটি চালু রেখেছেন।
তবে বিএনপির চেয়ারপারসন কার্যালয়ের একাধিক নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, মঈন খানের বাসায় প্রতি বছর অন্তত তিনবার কূটনীতিকদের এ ধরনের আপ্যায়ন করা হয়। ঈদ-উল ফিতর, ঈদ-উল আজহা ও গত কয়েক বছর ধরে পহেলা বৈশাখে এ আয়োজন করা হয়।সম্পাদনা: অশোকেশ রায়

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত