প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভ্যানচালক খুদে ফুটবলারের পাশে বিএনপি

ডেস্ক রিপোর্ট  : অর্থের অভাবে পড়ালেখা ও খেলা বন্ধ করে ভ্যান চালাতে শুরু করা শিহাবকে আর ভ্যান চালাতে হবে না। বরং পড়ালেখা ও ফুটবল খেলা চালিয়ে যেতে তার সমুদয় খরচ বহন করবে বিএনপি।

সম্প্রতি বিএনপির কেন্দ্রীয় ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক ও জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক আমিনুল হক তার হাতে আর্থিক অনুদান দেন এবং তার খরচ বহন করার অঙ্গীকার করেন।

আমিনুল জানান, গণমাধ্যমে শিহাবের খবর শুনে বুধবার বিকেলে ঢাকা থেকে পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার আলোকদিয়া গ্রামে শিহাবদের বাড়িতে গিয়ে আমিনুল হক তার হাতে শিক্ষা অনুদানের টাকা তুলে দেন।

শিহাব যাতে পড়াশোনা ও ফুটবল খেলা চালিয়ে যেতে পারে তার জন্য প্রতি মাসে আর্থিক অনুদান দেওয়ার ঘোষণা দেন। এই অনুদান প্রতি মাসে শিহাবের কাছে পৌঁছে যাবে বলে আশ্বাস দেন তিনি।

তিনি বলেন, ফুটবলার শিহাব উদ্দিনের প্রতিভা আর দরিদ্রের সঙ্গে জীবনযুদ্ধ দেখে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান তার পাশে দাঁড়ানোর জন্য নির্দেশনা দেন। তার নির্দেশে তিনি নিজে পাবনায় শিহাবের বাড়িতে যান। ফুটবল খেলাকে অব্যাহত রাখতে তার পড়াশুনার যাবতীয় দায়িত্ব তিনি গ্রহণ করেছেন। একইসঙ্গে তার খেলা সম্পৃক্ত যাবতীয় খরচও দল বহন করবে।

এ সময়ে তার সঙ্গে ছিলেন বিলুপ্ত ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের নেতা দবির উদ্দিন তুষার, গোলাম কিবরিয়া, ঢাকা মহানগর পশ্চিম ছাত্রদলের নেতা ইব্রাহীম খলিলসহ স্থানীয় বিএনপির নেতাকর্মীরা।

উল্লেখ্য পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রাম আলোকদিয়ার দরিদ্র ভ্যানচালক কোরবান হোসেনের ছেলে শিহাব উদ্দিন। প্রত্যন্ত গ্রামে বেড়ে ওঠা শিহাব ছোটবেলা থেকেই লেখাপড়ার পাশাপাশি ফুটবল খেলায় দক্ষতা অর্জন করে। ২০১৭ সালে তার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে সারা দেশে জাতীয় পর্যায়ে রানারআপ হয় সাঁথিয়ার ভুলবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। আর টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয় শিহাব উদ্দিন। সেরা খেলোয়াড় হিসেবে সে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত থেকে পুরস্কারও গ্রহণ করেন।

ওই টুর্নামেন্টের আগে তার অধিনায়কত্বেই ইউনিয়ন, উপজেলা, জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হয় ভুলবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। তবে দারিদ্র্যের কষাঘাতে বন্ধ হয়ে যায় প্রতিভাবান এই খুদে ফুটবলারের ফুটবল খেলা।

আলোকদিয়ার উচ্চ বিদ্যালয়ে সপ্তম শ্রেণিতে পড়া অবস্থায় তার পড়ালেখাও বন্ধ হয়ে যায়। এর পরিবর্তে তার হাত ও পা খুঁজে নেয় ভ্যানচালক বাবার ভ্যানের হ্যান্ডেল ও প্যাডেল। সংসার চালাতে বাবার পাশে গিয়ে দাঁড়ায় শিহাব।

উৎসঃ দেশ রূপান্তর

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত