প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নতুন জাতের সোনালী আঁশে স্বপ্ন বুনেছে চাষীরা

মো. ইউসুফ, রাজবাড়ী : রাজবাড়ী জেলার ৯০ জন কৃষককে দিয়ে পাটের নতুন জাত রবি-১ এর চাষ করিয়েছে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।

পরীক্ষামূলক এই চাষের ফলন নিয়ে কৃষি বিভাগের কর্মকর্তা ও পাট চাষীরা বেশ আশাবাদী। নতুন জাতের সোনালী আঁশের স্বপ্ন বুনেছেন তারা। কিন্তু পাট পঁচানোর জন্য পর্যাপ্ত পানি না থাকায় এই কৃষকরা শঙ্কায় রয়েছে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, রবি-১ নামে নতুন জাতের এই পাট বিঘায় ১০ মণ করে ফলন দিবে। বয়স ১০০ দিন হলেই জমি থেকে পাট কাটতে পারবে কৃষকরা। জেলার ৯০ জন চাষীর প্রত্যেককে ২৫০ গ্রাম করে বীজ দেয়া হয়েছে ১০ শতাংশ করে জমিতে চাষ করার জন্য। চাষের খরচ পড়বে তোষা-মেস্তা পাটের মতোই। এছাড়া এই পাট কাটার পরই কৃষকরা ওই জমিতে রোপা আমন ধান আবাদ করতে পারবে।

এই পরীক্ষামূলক পাটের চাষী রাজবাড়ী সদর উপজেলার রামকান্তপুর ইউনিয়নের এজাজুল ইসলাম ও বালিয়াকান্দি উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের চাঁদ আলী মোল্লা বলেন, নতুন জাতের রবি-১ পাটের গাছ তোষা-মেস্তা পাটের চেয়ে বড় ও মোটা হয়েছে। গোড়ার দিক থেকে মাথার দিকে ক্রমশ কিছুটা চিকন।

আশা করছি, বিঘা প্রতি ১০ মণ হারে ফলন পাবো। বাজার মূল্য ভালো থাকলে অবশ্যই লাভবান হবো। তারা আরও জানান, তোষা-মেস্তা পাটে ফলন হয় গড়ে ৭/৮ মণ হারে। নতুন জাতের এই পাটের আবাদের খরচ তোষা-মেস্তা পাটের মতোই।

তবে একাধিক কৃষক শঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, এ বছর পাট পঁচানোর পানি কম থাকায় কৃষকরা সঠিক সময়ে পাট কেটে জাগ দিতে পারছে না। দেরী করে পাট কেটে জাগ দিলে পাটের আঁশের গুণগত মান কমে যায়। দামও কম পাওয়া যায়। আর বাজারে সঠিক দাম না পেলে কৃষকরা পাট চাষে আগ্রহ হারিয়ে ফেলবে।

রাজবাড়ী সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. বাহাউদ্দিন শেখ জানান, সদর উপজেলার ৯ হাজার ৩০ হেক্টর জমিতে পাটের আবাদ হয়েছে। এর মধ্যে ৩ হেক্টর জমিতে রবি-১ নতুন জাতের পাট চাষ করেছে কৃষকরা। ফলন ভালো পেলে নতুন জাতের এই পাট রাজবাড়ী সদরের পাট চাষীদের মধ্যে জনপ্রিয়তা লাভ করবে।

বালিয়াকান্দি উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. শাখাওয়াত হোসেন জানান, বালিয়াকান্দি উপজেলার ১২ হাজার ১০০ হেক্টর জমিতে পাট চাষ করেছে চাষীরা। ২০ জন কৃষকের মাঝে রবি-১ জাতের নতুন পাট বীজ বিতরণ করা হয়েছিলো। তারা সেই জাতের পাট চাষ করেছে। তবে পাটের ফলন ভালো হলেও পানির অভাবে পাট পঁচানো নিয়ে শঙ্কায় রয়েছে চাষীরা।

রাজবাড়ীর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. ফজলুর রহমান জানান, পাটের জিন রহস্য আবিষ্কার করার পর বাংলাদেশ পাট গবেষণা ইনস্টিটিউট নতুন জাতের পাট রবি-১ উদ্ভাবন করেছে। রাজবাড়ী জেলার ৫টি উপজেলায় ৯০টি প্রদর্শনীর জন্য কৃষকদের এই বীজ দেয়া হয়। আশা করছি, আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে নতুন জাতের এই পাটের ফলন খুব ভালো হবে। এতে কৃষক লাভবান হবে এবং আগামীতে এই জাতের পাট চাষে আগ্রহী হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত