প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নবম ওয়েজবোর্ড বাস্তবায়িত হলে উভয়পক্ষই উপকৃত হবে, জানালেন খায়রুজ্জামান কামাল

ইয়াসমিন : সংবাদপত্রের জন্য গঠিত নবম ওয়েজবোর্ড শুধু সাংবাদিকদের বেতন বৃদ্ধি করবে তা নয়, এটির মাধ্যমে সংবাদপত্রের পরিবেশ পরিস্থিতি সবকিছু নির্ধারিত হবে। তাই এই ওয়েজবোর্ড বাস্তবায়িত হলে সংবাদপত্র মালিক ও সাংবাদিক উভয়পক্ষই উপকৃত হবে।

মঙ্গলবার একথাগুলো বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে)’র নির্বাহী পরিষদ সদস্য খায়রুজ্জামান কামাল।

তিনি বলেন, সরকারিভাবে নতুন কোন পে স্কেল হলে বেতন-ভাতা বাড়ে। মিডিয়ার জন্য আলাদা পে স্কেল হচ্ছে নবম ওয়েজবোর্ড। অষ্টম ওয়েজবোর্ডের সময় দেশের সংবাদপত্রগুলোতে পাঁচটা ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়েছে। এখন দেখা যাচ্ছে, এক নম্বর ক্যাটাগরির পত্রিকা খুবই কম। আবার, ৩নং, ৪নং ক্যাটাগরির পত্রিকাও খুব কম। আমাদের সংবাদপত্রের মালিকরা যখন জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গিয়ে পত্রিকার ডিক্লারেশন নেন তখন তারা বিভিন্ন শর্ত পূরণ করেন। তারা ব্যাংক সলভেন্সি সার্টিফিকেট দেন। তারা জানান যে, তাদের সকল ধরণের সক্ষমতা রয়েছে। এরপর তারা বেতন না দিতে চাইলে সেটা ঠিক নয়।

তিনি বলেন, ২০১৩ সালে অষ্টম ওয়েজবোর্ড ঘোষিত হয়েছে। এখন ৬ বছর পরে নবম ওয়েজবোর্ডে বেতন বাড়বে এটাই স্বাভাবিক। এই বিষয়টাই আমাদের মালিকদের কেউ কেউ মেনে নিতে পারছেননা। মালিকরাতো রেট কার্ড পাচ্ছেন। ওয়েজবোর্ড বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বিজ্ঞাপনের রেটও বেশি পাচ্ছেন। ৩শ টাকার বিজ্ঞাপন নয়শ টাকায় পাচ্ছেন। সরকার মালিকদের নিউজপ্রিন্ট ভর্তুকি দিচ্ছে। মালিকরা ভিআইপি মর্যাদা পাচ্ছে। সবকিছু মিলিয়ে সংবাদপত্রে যখন অন্য বিষয়গুলো ঠিকমতো হয় তখন সাংবাদিক ও সংবাদপত্রের কর্মীদের বেতন দিতে সমস্যা কোথায়?

তিনি বলেন, ওয়েজবোর্ডের মাধ্যমে নির্ধারণ হয়, সংবাদপত্রের পরিবেশ কেমন হবে? এখানে কর্মীরা ছুটি কেমন পাবে? তারা অবসরে যাওয়ার পর তাদের প্রাপ্য কি থাকবে? তারা অসুস্থ হলে কি ধরণের সহযোগিতা পাবে – সবকিছুই ওয়েজবোর্ডের মাধ্যমে নির্ধারিত হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত