প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কাঁঠাল ব্যবসায়ীদের ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনি, ৪ পুলিশ আহত, গ্রেপ্তার ১২

মাজহারুল ইসলাম : ছেলেধরা সন্দেহে সোমবার বিকেলে বগুড়ার গাবতলী এলাকায় বিক্ষুব্ধ জনতা ৪ব্যক্তিকে পিটিয়ে আহত করেছে। এ সময় তাদের সঙ্গে থাকা পিকআপ ভ্যানটিও পুড়িয়ে দেয়া হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সোমবার বিকাল ৩টার দিকে ৪ব্যক্তি একটি পিকআপ ভ্যান নিয়ে দূর্গাহাটা হাট এলাকায় আসে। ভ্যান থেকে নেমে এদিক সেদিক ঘোরাফেরা করলে স্থানীয় জনগণ তাদের ছেলেধরা সন্দেহ করেন। এরপর স্থানীয় লোকজন ওই ৪জনকে ধরে বেদম প্রহার শুরু করে এবং তাদের আনা পিকআপ ভ্যানে আগুন ধরিয়ে দেয়। প্রহারের এক পর্যায়ে ওই ৪ব্যক্তি দৌড়ে পাশর্^বর্তী তারা ইউনিয়ন পরিষদে কার্যলয়ে আশ্রয় নিয়ে নিজেদের প্রাণ বাঁচান। পরে পুলিশ সেখান থেকে তাদের থানায় আনাতে গেলে হাজার হাজার বিক্ষুব্ধ জনতা পুলিশের ওপর চড়াও হয়। বিক্ষুব্ধ জনতা ওই ৪জনকে তাদের হাতে তুলে দেয়ার দাবিতে পুলিশকে লক্ষ্য করে ওপর ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। এ সময় ইটের আঘাতে ৪জন পুলিশ আহত হন। এক পর্যায়ে পুলিশ লাঠিচার্জ করে জনতাদের ছত্রভঙ্গ করে সন্ধ্যা ৭টার দিকে প্রহারের শিকার ৪জন এবং পুলিশের ওপর হামলা ও সরকারি কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে ১২জনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

ছেলেধরা সন্দেহ আটকৃতরা হলেন, বগুড়ার গাবতলীর উপজেলার মহিষাবান কর্ণিপাড়ার বাসিন্দা হযরত আলীর ছেলে ফাইম (২৪), ধুনট উপজেলার জোড়শিমুল গ্রামের নজীর হোসেনের ২ ছেলে দুলাল (২২) ও নিয়ামুল (৩৬) এবং পারধুনট মধ্যপাড়ার বাসিন্দা আবদুর রশিদ আকন্দের ছেলে লুৎফর রহমান (৩৫)। ওই এলাকার সাবেক চেয়ারম্যান হান্নান জানান, ওই ৪জন কাঁঠাল ব্যবসায়ী। কাঁঠাল কেনার জন্য তারা দুর্গাহাটা বাজারে এসেছিলেন।

এ ঘটনার পর গাবতলী সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার সাবিনা ইয়াসমিনের নেতৃত্বে থানার ওসি সেলিম হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত