প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পায়ের ব্যবস্থা হয়েছে, এবার হাঁটবে আয়েশা

মুসবা তিন্নি : দুই ইঞ্জিনচালিত ভ্যানের চাপায় চার বছর আগে ডান পা থেঁতলে যায় মাদরাসাছাত্রী আয়েশা খাতুনের। চিকিৎসার পর ডান পায়ের হাঁটুর নিচ থেকে কেটে বাদ দেন চিকিৎসকরা। এরপর থেকেই সে ক্রাচ দিয়ে চলাফেরা করতে শুরু করে। চিকিৎসকরা কৃত্রিম পা লাগানোর পরামর্শ দেন। কৃত্রিম পা লাগানোর টাকা জোগাড় করতে পারেননি আয়েশার দিনমজুর বাবা। জাগো নিউজ

সংবাদটি প্রকাশ হওয়ার পর দেশ-বিদেশ থেকে হৃদয়বান মানুষেরা যোগাযোগ করে আয়েশার কৃত্রিম পা কিনে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। অনেকেই তাদের নম্বরে যোগাযোগ করে টাকা পাঠিয়েছেন। সাতক্ষীরার তালা সদরের আগোলঝাড়া গ্রামের বাসিন্দা ওমর আলী শেখের মেয়ে আয়েশা খাতুন। বর্তমানে সে আগোলঝাড়া দাখিল মাদরাসায় অষ্টম শ্রেণিতে লেখাপড়া করছে।

আয়েশা খাতুন রোববার সন্ধ্যায় জানান, সংবাদটি প্রকাশ হওয়ার পর দেশ-বিদেশ থেকে বহু হৃদয়বান মানুষ যোগাযোগ করেছেন। কথা বলেছেন। অনেকেই কৃত্রিম পা কিনে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। কেউ কেউ টাকা পাঠিয়েছেন।

আয়েশার ফুফা মোড়ল শাহিন উদ্দীন বলেন, হৃদয়বান মানুষের টাকায় আয়েশাকে নিয়ে সোমবার সকালে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হবো। সভারের সিআরপির একজন চিকিৎসক সেখানে থাকার ব্যবস্থা করবেন। এছাড়া জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন প্রভাষক কৃত্রিম পা ক্রয়ের টাকাটা সিআরপিতে জমা করে দেবেন। সহায়তা করবেন আমেরিকা প্রবাসী একজন।

এর আগে আয়েশা খাতুন জানিয়েছিলেন, চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ালেখা করার সময়ে পার্শ্ববর্তী ডুমুরিয়া থানার চুকনগর এলাকায় দুটি ইঞ্জিনভ্যানের মাঝখানে চাপা পড়ে তার ডান পা থেতলে যায়। পরে চিকিৎসকরা পা কেটে বাদ দেন। সম্পাদনা : রেজাউল/রাশিদুল

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত