প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ট্যাংকার ছেড়ে দিতে জাতিসংঘে ব্রিটেনের অভিযোগ, ইরান বলছে আদালতে যেতে, ট্রাম্পকে দায়ী করলেন করবিন

রাশিদ রিয়াজ : ব্রিটেনের লেবার পার্টির প্রধান জেরেমি করবিন বলেছেন, পারস্য উপসাগরে উত্তেজনা সৃষ্টির জন্য দায়ী হচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ইরান ব্রিটেনের একটি তেল ট্যাংকার আটক করার পর এক প্রতিক্রিয়ায় তিনিএ মন্তব্য করেন। ডেইলি মেইল বলছে, করবিন আরও বলেছেন, ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গিয়ে সংঘাতের আশঙ্কাকে বাড়িয়ে দিয়েছেন ট্রাম্প। এ সময় তিনি পারস্য উপসাগরে যুদ্ধের আশঙ্কা ও উত্তেজনা কমাতে যুক্তরাষ্ট্রকে পরমাণু সমঝোতায় ফেরাতে জাতিসংঘের মাধ্যমে আলোচনার কথাও বলেন। ফারস/সিএনএন/বিবিসি/ডেইলি মেইল/প্রেসটিভি

একই সঙ্গে জেরেমি করবিন ইরানে ব্রিটিশ তেল ট্যাংকার আটকের ঘটনাকে অগ্রহণযোগ্য বলে ট্যাংকারটিকে ছেড়ে দিতে ইরানের প্রতি আহ্বান জানান। কিন্তু ইরান বলছে আন্তর্জাতিক সমুদ্র আইন লঙ্ঘন করায় ট্যাংকারটিকে আটক করা হয়েছে এবং তা ছাড়িয়ে আনতে ব্রিটেনকে আন্তর্জাতিক আদালতে যেতে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ টেলিফোনে আহবান জানান ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্টকে। এদিকে জাতিসংঘে নিযুক্ত ব্রিটেনের স্থায়ী প্রতিনিধি ক্যারেন পিয়ের্স নিরাপত্তা পরিষদকে লেখা এক চিঠিতে দাবি করেছেন, ইরানের মাছ ধরা নৌকার সঙ্গে তেল ট্যাংকার ‘স্টেনা ইমপেরো’র ধাক্কা লাগার কোনো প্রমাণ নেই এবং বেআইনিভাবে ট্যাংকারটি আটক করেছে তেহরান।

তবে কূটনৈতিকভাবে বিষয়টির সমাধানের কথা বললেও নতুন করে ইরানের আর্থিক সম্পদ আটকের হুমকি দিয়েছে ব্রিটেন। এ হুমকির জবাবে জাতিসংঘে নিযুক্ত ইরানি রাষ্ট্রদূত হামিদ বায়েইদিনেজাদ বলেছেন, ব্রিটেনের এ ধরনের উদ্যোগ আরো বিপদজনক ও ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি সৃষ্টি করবে। ইরান যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় তৈরি বলেও হামিদ জানান।

এর আগে গত ৪ জুলাই ব্রিটিশ নৌবাহিনী জিব্রাল্টার প্রণালী থেকে ২১ লাখ ব্যারেল তেলবাহী ইরানের একটি সুপার ট্যাংকার আটক করে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত