প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

১০ বছরে ১৬ হাজার অগ্নিকাণ্ড, নিহত ১৫৯০  জন

আহমেদ শাহেদ : সারাদেশে গত ১০ বছরে ছোট-বড় অন্তত ১৬ হাজার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন ১ হাজার ৫৯০ জন। ২০১৮সালে সবচেয়ে বেশি অগ্নিকাণ্ড ঘটে ঘটলেও হতাহত বেশি হয় ২০১১ সালে। বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের ২০১০ থেকে ২০১৮ সালের পরিসংখ্যান থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

ফায়ার সার্ভিস বলছে, গত ১০ বছরে বড় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটেছিল ২০১০ সালে পুরান ঢাকার নিমতলীতে। এতে ১২৪ জন মারা যায়। এর পরের বছর সাভারের আশুলিয়ায় তাজরীন ফ্যাশনসে অগ্নিকাণ্ডে প্রাণ হারায় ১১১ জন। আর ২০১৬ সালে টঙ্গীর টাম্পাকো ফয়েলস কারখানার অগ্নিকাণ্ডে মারা যায় ৪১ জন।

ফায়ার সার্ভিসের দ্বায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা বলেন, অগ্নিপ্রতিরোধের ব্যবস্থা বিনিয়োগের অংশ হিসেবে দেখতে হবে। কারণ অগ্নিকাণ্ডে জীবন ও সম্পদের ক্ষতি হয়। অনেকেই মনে করেন, আগুন লাগলে পরে দেখা যাবে। এই ভেবে অনেকেই প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নেন না। এমন মানসিকতা থেকে বের হয়ে আসতে হবে।

ফায়ার সার্ভিসের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ২০১০ সালে সারা দেশে ১৪ হাজার ৬৮২টি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে ২৭১ জন নিহত ও ৭৯৪ জন আহত হন। গরিব অ্যান্ড গরিব গার্মেন্টস, গাজীপুর ২০১০ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি, নিহত ২১। ২০১১ সালে ১৫ হাজার ৮১৫টি দুর্ঘটনায় ৩৬৫ জন নিহত ও ১ হাজার ৪৭৯ জন আহত হন। দ্যাটস ইট স্পোর্টস ওয়্যার আশুলিয়া ২০১০ সালের ১৪ ডিসেম্বর, নিহত ২৯ জন। ২০১২ সালে ২১০ জন নিহত ও ৮০৩ জন আহত, ২০১৩ সালে ১৬১ জন নিহত ও ১ হাজার ৪৭১ জন আহত, ২০১৪ সালে ৭০ জন নিহত ও ২৫০ জন আহত, ২০১৫ সালে ৬৮ জন নিহত ও ২৫৪ জন আহত, ২০১৬ সালে ৫২ জন নিহত ও ২৬৭ জন আহত, ২০১৭ সালে ৪৫ জন নিহত ও ২৮৪ জন আহত এবং ২০১৮ সালে ১৩০ জন নিহত ও ৬৭৭ জন আহত হন। এতে ৪ হাজার কোটি টাকার বেশি আর্থিক ক্ষয়ক্ষতি হয়। ঢাকায় সবচেয়ে বেশি, আর সবচেয়ে কম অগ্নিকাণ্ড ঘটনা ঘটে সিলেট বিভাগে।

এএস/এমআই/টিই

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত