প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পিউ রিসার্চ সেন্টারের প্রতিবেদন
ধর্মীয় স্বাধীনতায় বাঁধা দেয়ার ক্ষেত্রে সৌদি আরব, সিরিয়া ও ইরানের সঙ্গে একই কাতারে ইসরায়েল

নূর মাজিদ : ধর্মীয় স্বাধীনতা বা বিশ্বাসে হস্তক্ষেপের ক্ষেত্রে বিশ্বের সবচেয়ে কট্টরপন্থী দেশগুলোর তালিকায় রয়েছে, পশ্চিমের ভাষায় মধ্যপ্রাচ্যে গণতন্ত্রের আলোকবর্তিকা ইসরায়েল। যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত গবেষণা সংস্থা পিউ রিসার্চ সেন্টার তাদের সা¤প্রতিকতম প্রতিবেদনে একথা জানিয়েছে। যা সোমবার প্রকাশ করা হয়। সূত্র : হারেৎজ, ফরওয়ার্ড ডটকম।

প্রতিবেদনে প্রকাশ, মধ্যপ্রাচ্যে ধর্মীয় স্বাধীনতা লঙ্ঘনের ক্ষেত্রে সৌদি আরব, সিরিয়া এবং ইরানের সঙ্গে একই কাতারে অবস্থান ইসরায়েলের। একইসঙ্গে, ইউরোপজুড়ে নতুন করে ইহুদি বিদ্বেষ ছড়িয়ে পড়া এবং তাদের ওপর আক্রমণের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ার বিষয়টিও আলোচনা করা হয়। ইউরোপ মহাদেশের দেশগুলো সহ বিশ্বের আরো ৮৭ দেশে ২০১৭ সালে ইহুদিদের হয়রানি হওয়ার পরিমাণ বেড়েছে বলেও জানায় প্রতিবেদনটি। সকল ধরণের ধর্ম বিশ্বাসীরা যে পরিমাণ হয়রানির শিকার হন তার মাঝে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছেন ইহুদিরাই।

পিউ রিসার্চের এবারের প্রতিবেদনে, বিশ্বজুড়ে ধর্মবিশ্বাস পালনে রাষ্ট্রীয় বিধি-নিষেধ, বিচারিক দÐ এবং অন্যান্য নির্যাতন আরোপের বিষয়টি তুলে ধরা হয়েছে। অন্য ধর্মের বিশ্বাসীদের প্রতি সামাজিকভাবে ইসরাইলে ব্যাপক নেতিবাচক এবং সহিংস মনো ভাব বিদ্যমান, এইক্ষেত্রে সারা বিশ্বের মাঝে দেশটির অবস্থান পঞ্চম স্থানে। আন্তঃধর্ম উত্তেজনা এবং সহিংসতার দিক থেকে দেশটি ষষ্ঠস্থানে রয়েছে। যার তুলনায় আন্তঃধর্ম স¤প্রতির দিক থেকে যুদ্ধবিদ্ধস্ত সিরিয়া এগিয়ে রয়েছে।

প্রতিবেদনে অন্য ধর্ম বিশ্বাসীদের প্রতি নিপীড়নমূলক আচরণ এবং বৈষম্যের কথাও তুলে ধরা হয়। যেমন হারেডি অর্থোডক্স ইহুদিদের এলাকা দিয়ে অন্য ধর্মের কেউ গাড়ি চালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলেই, তার গাড়ি থামিয়ে হয়রানি করা হয়। এমনকি সরকারি কর্মকর্তারাও ধর্মীয় আইন বা বিধি দেশটির প্রচলিত আইনে কার্যকর করেন।

ইসরায়েল সাংবিধানিকভাবেই একটি ইহুদি রাষ্ট্র। দেশটির হারেডি অর্থোডক্স ধর্মীয় প্রধান রাবাইরা (যাজকেরা) বিয়ে, বিবাহ-বিচ্ছেদ, দাফন এবং ধর্মান্তর হওয়ার মতো বিষয়ে নিজেদের অধিকার চর্চা করেন বা আইনি অধিকার রাখেন। অবশ্য এর অর্থ হলো যেসব ইহুদি হারেডি মতবাদের অনুসারি নন, তাদের সকলের বিয়ে, বিচ্ছেদ এবং দাফনের বিষয়ে রাষ্ট্র দ্বারা স্বীকৃত কোন বৈধতা নেই। এমনকি রাষ্ট্র অর্থোডক্স এবং অর্থোডক্স নন এমন স¤প্রদায়ের মাঝে বিয়ের বিষয়টিকেও আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দেয়না।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত