প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কুড়িগ্রামে আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার আগ্রহ কম বন্যাদুর্গতদের

নুর নাহার : কুড়িগ্রামে গবাদি পশু এবং ঘরবাড়ি রেখে আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার আগ্রহ কম বন্যাদুর্গতদের। আশ্রয় নিলেও ত্রাণসামগ্রী পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ করেছেন অনেকে। ইনডিপেনডেন্ট টিভি ১১:০০

একই অভিযোগ প্রত্যন্ত অঞ্চলের অনেক মানুষের। তবে প্রশাসনের দাবি, ত্রাণসামগ্রীর পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে, পৌঁছানো হবে সবার কাছেই।

বৃষ্টি ও উজানের ঢলে কুড়িগ্রামে পানি বেড়েছে ব্রহ্মপুত্র, তিস্তা, ধরলাসহ ১৬টি নদ-নদীর। প্লাবিত হয়েছে ৯ উপজেলার বেশির ভাগ এলাকা।

সরকারি হিসাবেই ক্ষতিগ্রস্ত প্রায় ৬ লাখ মানুষ। তাদের জন্য ৪০৯টি আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত করা হলেও অনেকেই সেখানে যাননি। ২১টি কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছে সাড়ে আটশোর মতো পরিবার।

এক বাসিন্দা বলেন, ৪ দিন আশ্রয় কেন্দ্রে এসেছি, কেউ খোঁজ নেয় না এবং থাকা-খাওয়ার খুব অসুবিধা। জেলা প্রশাসন জানান, গবাদি পশুর কারণে অনেকেই বসতবাড়ি ছেড়ে আশ্রয়কে যেতে চান না। তবে বন্যাদুর্গত প্রত্যেকের কাছেই পর্যায়ক্রমে পৌঁছানো হবে ত্রাণসামগ্রী।

কুড়িগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান বলেন, যথেষ্ট খাদ্য মজুদ আছে। ২-১ দিনেই পাবে সবাই, তাদের অভিযোগ সত্য না।

কুড়িগ্রামে নদীভাঙনে এরই মধ্যে ঘর হারিয়েছেন কমপক্ষে ৫ হাজার মানুষ। অনেকে আশ্রয় নিয়েছেন সড়কে। সরকারি আশ্রয়কেন্দ্রের খবর জানেন না বলেও দাবি বন্যার্তদের। সম্পাদনা : রেজাউল আহ্সান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত