প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিশ্বকাপের স্মরণীয় ৫টি ঘটনা

স্পোর্টস ডেস্ক : গত রোববার ইংল্যান্ডের শিরোপা জয়ের মাধ্যমে শেষ হয়েছে ওয়ানডে বিশ্বকাপের ১২তম আসরের ৪৬ দিনের যাত্রা। বাংলাদেশের মিশ্র পারফরম্যান্স, নিউজিল্যান্ডের অসাধারণ টিম স্পিরিট, ইংল্যান্ডের নিজেদের প্রথম বিশ্বকাপ শিরোপা জয়, আফগানিস্তানের শূন্য হাতে বাড়ি ফেরা সহ অনেক স্মরণীয় ঘটনা ঘটেছে এই বিশ্বকাপে। বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ঘটনার মাঝে সেরা ৫টি স্মরণীয় ঘটনা বা মুহূর্ত বেছে নিতে বললে বেশ বিপাকেই পরতে হবে ক্রিকেট ভক্তদের। তবে এরপরও ৩/৪ ঘটনা হয়তো অবশ্যই প্রায় সকল বাংলাদেশী ক্রিকেট ভক্তের সেরা পাঁচের তালিকায় থাকবে। দেখে নেওয়া যাক এই বিশ্বকাপের সেরা ৫টি ঘটনা বা আলোচিত মুহূর্ত গুলো।

৫. সাকিব আল হাসান ও লিটন দাসের জুটি : এই বিশ্বকাপে মাত্র ১ বার কোন দল ৩০০ রান তাড়া করে জয়ের দেখা পায়। অথচ বিশ্বকাপের আগে কথা উঠেছিলো এই বিশ্বকাপে নিয়মিত ৩০০/৩৫০ চেজ হবে। পুরো বিশ্বকাপের একমাত্র ৩০০ রানের অধিক টার্গেট চেজ করে দেখানো দলটি ছিলো বাংলাদেশ। সেই জয়ের নায়ক লিটন দাস ও সাকিব আল হাসান।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টনটনে ৩২২ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালো করলেও মাঝে তামিম ও মুশফিকের উইকেট চলে যাওয়াতে বিপদে পরে যায় বাংলাদেশ। তখন ফর্মে থাকা সাকিবকে ক্রিজে সঙ্গ দিতে আসেন বিশ্বকাপে নিজের প্রথম ম্যাচ খেলতে আসা লিটন দাস। দুইজন বাংলাদেশকে ম্যাচ জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন।

সাকিব ১২৪ ও লিটন দাশ ৯৪ রানে অপরাজিত ছিলেন। লিটনের ইনিংসে ছিলো এক ওভারে টানা ৩ ছক্কার মার। অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ম্যান অফ দ্য ম্যাচ হন সাকিব আল হাসান। এশিয়ান দল হয়েও ইংল্যান্ডের মাটিতে এই বিশ্বকাপে একমাত্র দল হিসেবে ৩০০ রান তাড়া করায় এই মুহূর্তটি ২০১৯ বিশ্বকাপের সেরা কিছু মুহূর্তের তালিকায় উপরের দিকেই থাকবে।

৪. ৮৭ বছরের চারুলতা প্যাটেলের অসাধারণ সাপোর্ট : এই তালিকার একমাত্র ঘটনা যেটি মাঠের বাইরের। বাংলাদেশ বনাম ভারত ম্যাচে গ্যালারিতে দেখা যায় ৮৭ বছর বয়সী চারুলতা প্যাটেলকে ভারতীয় দলকে সমর্থন দিতে। এই বয়সেও এত উৎসাহ উদ্দীপনার সাথে দলকে সমর্থন দেওয়া পুরো ক্রিকেট বিশ্বের নজর কাড়েন চারুলতা। টিভির পর্দায় তাকে দেখানোর পরই ভাইরাল হয়ে যান ৮৭ বছর বয়স্ক এই বৃদ্ধা। খেলা শেষে কোহলি, রোহিতরা তার সাথে দেখা করতে যান। কোহলি তার জন্য পরবর্তী খেলাগুলোর টিকিট নিশ্চিত করেন। পরবর্তী ম্যাচগুলোতেও চারুলতা প্যাটেলকে একই উৎসাহে মাঠে ভারতকে সমর্থন দিতে দেখা যায়।

৩. গাপটিলের থ্রোতে ধোনির রান আউট : পুরো আসর জুড়েই ফ্লপ ছিলেন নিউজিল্যান্ডের ওপেনিং ব্যাটসম্যান মার্টিন গাপটিল। তবে সেমিফাইনালে গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে করা তার রান আউট দীর্ঘদিনের জন্য ক্রিকেট ভক্তদের মনে থাকবে। ম্যানচেস্টারের সেই অসাধারণ সেমিফাইনালে জাদেজা ও ধোনি জুটি একসময় ভারতকে জয়ের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যাচ্ছিলো। জাদেজার উইকেটের পরও ভারত ম্যাচে ছিলো যেহেতু ধোনি ছিলেন। তবে গাপটিলের ডাইরেক্ট থ্রোতে ধোনির আউটের পর নিশ্চিত হয়ে যায় এই ম্যাচে ভারত ফিরছেনা। সেই মুহূর্তটি ভেঙ্গে দেয় কোটি কোটি ভারতীয়দের বিশ্বকাপ ফাইনাল খেলার স্বপ্ন।

২. ওয়েস্ট ইন্ডিজ-নিউজিল্যান্ড ম্যানচেস্টার ক্লাসিক : বিশ্বকাপের সেরা ৩ ম্যাচের একটিতে থাকবে ম্যানচেস্টারের ওয়েস্ট ইন্ডিজ নিউজিল্যান্ড ম্যাচটি। টানটান উত্তেজনার ম্যাচটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৫ রানে হারিয়ে মহা গুরুত্বপ‚র্ণ দুই পয়েন্ট তুলে নেয় নিউজিল্যান্ড। সেই ২ পয়েন্ট না হলে হয়তো নিউজিল্যান্ডের বদলে পাকিস্তানই সেমিফাইনাল খেলতো। প্রথমে ব্যাট করে উইলিয়ামসনের ১৪৮ রানের সুবাদে ২৯১ রান সংগ্রহ করে নিউজিল্যান্ড। জবাবে ১৬৪ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে প্রায় ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তবে কার্লোস ব্র্যাথওয়েটের বোধ হয় আরেকটি ইডেনের গল্প লেখার ইচ্ছা ছিলো। একাই লড়ে যান তিনি। ৪৮তম ওভারে ২৫ রান নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে এক অবিশ্বাস্য জয়ের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যান ব্র্যাথওয়েট। তবে শেষ পর্যন্ত বাউন্ডারি লাইনের কাছে বোল্টের হাতে ধরা পরেন অসাধারণ এক শতক করা ব্র্যাথওয়েট। ওয়েস্ট ইন্ডিজ হারলেও ম্যানচেস্টারে মাঠে থাকা হাজারো ভক্ত সেদিন উপভোগ করে এক অসাধারণ ম্যাচ।

১. বিশ্বকাপ ফাইনালের সুপার ওভার : পূর্বের কোন ক্রিকেট বিশ্বকাপ ফাইনালে সুপার ওভার হয়নি। ভবিষ্যতেও কখনো এই বিরল ঘটনা হওয়ার সুযোগ খুব কম। ৫০ ওভারের লড়াই টাই ও সুপার ওভার টাই, লর্ডসে উপস্থিত সেইদিনের দর্শকরা নিজেদের ভাগ্যবান বলতেই পারেন ওয়ানডে ইতিহাসের অন্যতম সেরা ম্যাচের সাক্ষী হতে পারায়। নূন্যতম ব্যবধানেই ক্রিকেটের জন্মভ‚মি ইংল্যান্ডের ঘরে উঠলো বিশ্বকাপের তাদের প্রথম শিরোপা। নিঃসন্দেহে এই অসাধারণ সুপার ওভার ক্রিকেট ভক্তদের মনে থাকবে লম্বা সময় পর্যন্ত।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত