প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পোড়ানো হলো জেলিযুক্ত ২০ মণ বাগদা চিংড়ি

মাসুদ আলম: রাজধানীর উত্তরার আব্দুল্লাহপুর দুটি মাছের আড়তে অভিযান চালিয়ে জব্দকৃত জেলি মেশানো ২০ মণ বাগদা চিংড়ি পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে পাশের সিটি করপোরেশনের ডাম্পিং স্টেশনে মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর চিংড়িগুলো ধ্বংস করা হয়।

এর আগে ভোরে অভিযান চালিয়ে মেসার্স বাগেরহাট মৎস্য আড়ৎ ও মেসার্স মিম মৎস্য আড়ৎ থেকে চিংড়িগুলো জব্দ করেন র্যা বের ভ্রাম্যমাণ আদালত। আড়ৎ দুটিকে ৯০ হাজার টাকা জরিমানাও করা হয়। র্যা ব-৪ ও মৎস্য অধিদপ্তরের যৌথ অভিযানে নেতৃত্ব দেন র্যা বের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিজাম উদ্দিন আহমেদ।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিজাম উদ্দিন বলেন, নানা কৌশলে বাগদা চিংড়ির ওজন বাড়ানো হতো। আব্দুল্লাহপুর মৎস্য বাজারের কয়েকটি আড়তে বাগদা চিংড়ি আনা হতো সাতক্ষীরা থেকে। সাতক্ষীরাতেই তরল জেলি সিরিঞ্জের মাধ্যমে বাগদা চিংড়ির মাথার ফাঁকা অংশে ঢুকিয়ে দেওয়া হতো। বরফের মধ্যে রাখলে এই জেলি শক্ত হয়ে বাগদা চিংড়ির ওজন বেড়ে যেতো। এমন তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে জেলি মেশানোর অভিযোগে দুটি আড়তের ম্যানেজার লোকনাথ চন্দ্র দাস ও নূরে আলমকে ৯০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। তবে অভিযানের বিষয়টি টের পেয়ে দুই আড়তের মালিক পালিয়ে যান। এসব বাগদার কেজিপ্রতি পাইকারি মূল্য ৫০০ টাকা। খুচরা মূল্য প্রায় ৭০০ টাকা। যে পরিমাণ বাগদা জব্দের পর পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়েছে, এর পাইকারি বাজার মূল্য পাঁচ লাখ টাকার বেশি।

সম্পাদনা: অশোকেশ রায়

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত