প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র এখনো শেষ হয়নি, বললেন হানিফ

সমীরণ রায়: আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেছেন, `আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র এখনো শেষ হয়নি। ষড়যন্ত্রকারীদের সম্পর্কে আমাদের নেতাকর্মীদের সাবধান থাকতে হবে। ঐক্যবদ্ধ থেকে সব ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করতে হবে।’ ওয়ান ইলেভেনের সময় শেখ হাসিনাকে গ্রেপ্তারের পেছনে যারা জড়িত ছিলেন, তাদের গ্রেপ্তার করে শাস্তি দিতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।
মঙ্গলবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউস্থ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের সভাপতি শেখ হামিনার কারান্তরীণ ও গণতন্ত্র অবরুদ্ধ দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

হানিফ বলেন, ‘বিএনপি কখনোই গণতান্ত্রিক দল ছিলো না। তাদের জন্ম হলো বন্দুকের নলের আগায়। আর তারা আওয়ামী লীগকে গণতন্ত্র শেখাতে চায়। আজকের দিনটি কলঙ্কিত দিন। বিএনপির কারণে ২০০৭ সালের এই দিনে শেখ হাসিনাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিলো।’
‘ এর আগে পাঁচ বছর ক্ষমতায় ছিলো বিএনপি। ক্ষমতার মেয়াদ শেষে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের হাতে ক্ষমতা দেয়ার কথা। কিন্তু তা না দিয়ে খালেদা জিয়া ক্ষমতা আঁকড়ে ধরে থাকলেন। যে কারণে ১/১১’র জন্ম হলো এবং অবৈধ সরকারের হাতে ক্ষমতা গেলো। আর সেই সরকার ক্ষমতায় এসে শেখ হাসিনাকে গ্রেপ্তার করলো।’

হানিফ আরও বলেন, ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পাঁচ বছর পর তত্ত্বাবধায়ক সরকারের হাতে ক্ষমতা দিয়েছিল। সেবারের নির্বাচনে আবারও ক্ষমতায় গিয়েছিল বিএনপি। কিন্তু খালেদা জিয়ার পাঁচ বছর শেষে টালবাহানা শুরু হয়। তারই পরিপ্রেক্ষিতে আসে ১/১১। তারা আবার তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কথা বলে, গণতন্ত্রের কথা বলে।’

‘ পাঁচ বছর ক্ষমতায় থেকে খালেদা জিয়া হাওয়া ভবন, খোয়াব ভবন তৈরি করে তার ছেলেকে দিয়ে লুটপাট করালো। আর দেশের সম্পদ বিদেশে পাচার করলো এবং ১/১১ এর সরকার ক্ষমতায় এসে শেখ হাসিনাকে গ্রেপ্তার করলো। শেখ হাসিনাকে কেন গ্রেপ্তার করা হলো, তা কেউ বলতে পারেনি। সেদিন মহানগর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের আন্দোলনের তোড়ে প্রশাসন শেখ হাসিনাকে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয় তারা।’
ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন দলের সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা হুমায়ুন কবির, অ্যাডভোকেট নুরুল আমিন রুহুল, কামাল চৌধুরী, ডা. দিলীপ রায় প্রমুখ।

সম্পাদনা: অশোকেশ রায়

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত