প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সকল ভয়-ভীতির ঊর্ধ্বে কাজ করছে বিএসটিআই, বললেন শিল্পমন্ত্রী

স্বপ্না চক্রবর্তী : জাতীয় মান নির্ধারণী প্রতিষ্ঠান হিসেবে পণ্য ও সেবার গুণগত মান সুরক্ষায় বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইন্সটিটিউশন (বিএসটিআই) অর্পিত দায়িত্ব পালনে সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন। তিনি বলেছেন, ‘সম্প্রতি বিএসটিআইর অর্জন আমাদেরকে আশান্বিত করেছে। সব ধরনের ভয়-ভীতির ঊর্ধ্বে থেকে আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সঙ্গে অর্পিত দায়িত্ব পালন করছে প্রতিষ্ঠানটি।’

নিম্নমান ও ভেজাল পণ্য এবং ওজন ও পরিমাপে কারচুপি রোধে বিএসটিআইকে এভাবে সর্বোচ্চ সাহসিকতার সঙ্গে ভূমিকা রাখতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

বৃহস্পতিবার কক্সবাজার বিএসটিআইর জেলা অফিস উদ্বোধন শেষে বিয়াম ফাউন্ডেশনে আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিল্পমন্ত্রী বলেন, ‘জনগণের দোরগোড়ায় সেবা পৌঁছে দিতে সরকার জেলা পর্যায়ে বিএসটিআইর অফিস স্থাপনের পরিকল্পনা নিয়েছে। এরই অংশ হিসেবে ময়মনসিংহ, রংপুর, ফরিদপুর, কুমিল্লায় অফিস কাম ল্যাবরেটরি ভবন স্থাপিত হয়েছে। কক্সবাজারে বিএসটিআইর জেলা কার্যালয় উদ্বোধন করা হলো। এর ফলে এই অঞ্চলের সাধারণ জনগণ সঠিক মান এবং সঠিক পরিমাপের পণ্য ও সেবা পাবে এবং এই এলাকায় আন্তর্জাতিক মানের শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠবে। আরও ১২টি জেলায় বিএসটিআইর অফিস স্থাপনের প্রক্রিয়া চলমান।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার। স্বাগত বক্তব্য দেন বিএসটিআইর মহাপরিচালক মো. মুয়াজ্জেম হোসাইন এবং সভাপতিত্ব করেন শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ মফিজুল হক। অনুষ্ঠানে কক্সবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল, বিএসটিআইর পরিচালক (প্রশাসন) ও সংশ্লিষ্ট প্রকল্প পরিচালক মো. তাহের জামিলসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে শিল্প প্রতিমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার বিএসটিআইকে আন্তর্জাতিক মানের প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তুলতে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। সরকারের অভিপ্রায় সফল করতে সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা অব্যহত রেখেছে প্রতিষ্ঠানটিও। অসাধু ব্যবসায়ীদের বিএসটিআই নিজস্ব আইনে শাস্তি দিচ্ছে। তিনি বিএসটিআইর কর্মকর্তাদের নির্ভয়ে-নির্দ্বিধায়, হুমকি-ধুমকি অগ্রাহ্য করে কার্যক্রম অব্যহত রাখার আহ্বান জানান।

স্বাগত বক্তব্যে বিএসটিআইর মহাপরিচালক গত ১০ বছরে প্রতিষ্ঠানটির ল্যাবরেটরি, প্রোডাক্ট সার্টিফিকেশন, ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম সার্টিফিকেশনের এ্যাক্রেডিটেশন অর্জনসহ প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন সফলতা তুলে ধরে বলেন, জনগণের মাঝে এ কাজের সফলতা পৌঁছে দিতে হলে বিএসটিআইর একক প্রচেষ্টা যথেষ্ঠ নয়। এজন্য উৎপাদনকারী থেকে ভোক্তা পর্যন্ত সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টা প্রয়োজন।

সম্পাদনা: অশোকেশ রায়

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত