প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষকের গ্রেড উন্নীত হচ্ছে

নুর নাহার : প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের বেতনের গ্রেড বাড়ানো হচ্ছে। তাদেরকে সরকারী বেতন কাঠামোর ১১ তম গ্রেডে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ইনডিপেনডেন্ট টিভি-১০.০০
প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, বেতন বৈষম্য দূর করতেই এ সিদ্ধান্ত। শিগগিরই এটি বাস্তবায়ন করা হবে।
তেজগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আলমগীর হোসেন। ৩২ বছর চাকরি শেষে ২০ হাজার ৪২০ টাকা স্কেলে বেতন নিয়ে কিছুদিনের মধ্যেই অবসরে যাচ্ছেন। অল্প বেতনে সারাজীবন তাকে পার করতে হয়েছে টানাপড়েনের মধ্যে।

তিনি বলেন, আমাদের জন্য একটু কষ্টকরই। ৪-৫ জনের সংসারে এই টাকা দিয়ে চলা, খুব টেনেটুনে চলতে হয় আর কি।
একজন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষককে দিনে গড়ে ৭টি করে ক্লাস নিতে হয়। ক্লাসের বাইরেও প্রায়ই বিভিন্ন সরকারি জরিপের কাজ, নির্বাচনি দায়িত্ব পালন করতে হয়। অথচ বর্তমান বেতন স্কেলে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকরা ১৩ তম গ্রেডে ৯ হাজার ৭শ টাকা স্কেলে বেতন পান।

শিক্ষকরা বলছেন, এই সময়ে এত অল্প বেতনে জীবন ধারণ কষ্টকর। তাই সহকারী শিক্ষকদের বেতন ১১ তম স্কেলে এবং প্রধান শিক্ষকদের বেতন ১০ম স্কেলে দেয়ার দাবি তাদের।

এ অবস্থায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আশ্বাস, শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য দূর করার কাজ চলছে।
প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রিী জাকির হোসেন বলেন, কাজ চলছে। প্রায় ৮০ ভাগ অগ্রগতি হয়েছে ইনশাল্লাহ। আমরা যেকোনো সময় নীতিগতভাবে এটি কার্যকর করবো।উন্নত বিশ্বে সবচেয়ে মেধাবীদেরকে প্রাথমিক পর্যায়ে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয় ।

শিক্ষাবিদরা বলছেন, বাংলাদেশেও সুযোগ সুবিধা এবং সম্মান বাড়িয়ে মেধাবীদেরকে এ পেশায় আনতে হবে। তাহলেই নিশ্চিত করা সম্ভব হবে মানসম্মত শিক্ষা। সম্পাদনা : কায়কোবাদ মিলন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত