প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বাংলাদেশের বাণিজ্য ঘাটতি ১৬ হাজার ২৮৪ মিলিয়ন ডলার, সংসদে বাণিজ্যমন্ত্রী

আসাদুজ্জামান সম্রাট : বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্য ঘাটতি ছিল ১৬ হাজার ২৮৪.৮৩ মিলিয়ন ইউএস ডলার। এসব দেশের সংখ্যা প্রায় ১০০টি। বাণিজ্য ঘাটতি থাকা উল্লেখযোগ্য দেশগুলোর মধ্যে রয়েছে চীন, ভারত, কোরিয়া রিপাবলিকান, পাকিস্তান, সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, সুইজারল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, রাশিয়া, অস্ট্রেলিয়া, জাপান ও কুয়েত।

বৃহস্পতিবার টেবিলে উত্থাপিত লিয়াকত হোসেন খোকার প্রশ্নের জবাবে সংসদকে এ তথ্য জানান তিনি।

হাবিবা রহমান খানের প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, পাকিস্তান থেকে বাংলাদেশে পণ্য আমদানি হয়ে থাকে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ৭৭২ মিলিয়ন ইউএস ডলার মূল্যের পণ্য আমদানি হয়েছে। আমদানি হওয়া উল্লেখযোগ্য পণ্যগুলো হচ্ছে, কাপড়, হিমায়িত মাছ, চামড়াজাত পণ্য, মেশিনারিজ, প্লাস্টিক, রাবার, সবজিজাত পণ্য, সুগন্ধি চাল, গোলাপ ফুল, বেবি ফুড, মসলা, চিপস ও খেজুর ইত্যাদি। ওই অর্থবছরে বাংলাদেশ থেকে পাকিস্তানে মোট রপ্তানির পরিমাণ ছিল ৭৩.৮৮ মিলিয়ন ইউএস ডলার। মন্ত্রী বলেন, ভারত ও পাকিস্তান থেকে বাংলাদেশে বিভিন্ন পণ্য আমদানি করা হয়, সেই কারণে দেশ দুটির পণ্য এখানকার বাজারে থাকাটাই স্বাভাবিক। বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সীমান্ত হাট রয়েছে ১৬টি।

মো. মামুনুর রশীদ কিরণের প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশ ৩৮টি দেশে জিএসপি সুবিধা পাচ্ছে। এসব দেশের মধ্যে ইউরোপিয়ানভুক্ত ২৮টি এবং অন্যান্য দেশগুলোর মধ্যে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, নরওয়ে, সুইজারল্যান্ড, জাপান, তুরস্ক, রাশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, কানাডা ও চিলি রয়েছে।

জিএসপি সুবিধার আওতায় রুলস অব অরজিন শিথিলসহ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উত্তরণ পরবর্তী সময়ে বিদ্যমান শুল্ক সুবিধা অব্যাহত রাখার বিষয়ে বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ মিশনগুলো সংশ্লিস্ট দেশের সঙ্গে সক্রিয় যোগাযোগ রক্ষা করে থাকে। জিএসপি সুবিধাপ্রাপ্ত দেশগুলোতে রপ্তানি সম্ভাবনা থাকা সত্ত্বেও আশানুরূপ না বাড়লে বিদেশে অবস্থিত বাণিজ্য মিশনগুলো সভা, সেমিনার ও মেলাসহ বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে দেশগুলোর ব্যবসায়ীদের অবহিত ও উদ্বুদ্ধ করে থাকে। এছাড়া বাংলাদেশে থেকে ইস্যুকৃত জিএসপি সনদ সম্পর্কিত কোনো সমস্যা দেখা দিলে সেইসব বিষয়ে বাণিজ্য মিশনগুলো মন্ত্রণালয়, রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো ও অন্যান্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ নিয়ে থাকে।

সম্পাদনা: অশোকেশ রায়

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত