প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দুর্ভোগের আরেক নাম মীরসরাই-মলিয়াইশ সড়ক

ইমাম হোসেন, মীরসরাই (চট্টগ্রাম) : মীরসরাই সদর থেকে মলিয়াইশ সড়কের বেহাল দশা বিরাজ করছে। গত কয়েক বছর ধরে এই সড়কের নাজুক পরিস্থিতি। প্রতিদিন চরম দুর্ভোগ পৌহাতে হচ্ছে যাতায়াতকারী শত শত যাত্রীদের। এই সড়ক দিয়ে স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা শিক্ষার্থী, সরকারি, বেসরকারি চাকুরিজীবিসহ কয়েক ইউনিয়নের বিভিন্ন পেশার মানুষ চলাচল করে।

৫ কিলোমিটার দীর্ঘ মলিয়াইশ সড়কের পৌরসভা অংশে চলাচল করতে মানুষের ভোগান্তি শেষ নেই। সড়কের নাজির পাড়া থেকে বানাতলী পর্যন্ত অবশিষ্ট সড়ক ভালো থাকলেও এরপর মীরসরাই পৌরসদরের ৫, ৬, ৭ ও ৮ নংওয়ার্ডে অবস্থিত বটতল, কবির মেমোরিয়াল, কালামিয়ার দোকান এলাকার অন্তত দুই কিলোমিটার জুড়ে বড় বড় গর্ত, কোথাও কোথাও ধসে যাওয়া অংশে জনদূর্ভোগ অব্যাহত । এই অবস্থা গত ৫ বছর ধরে। অনেকে এই সড়ক বাদ দিয়ে বিকল্প সড়ক হিসেবে আবুতোরাব-বড়তাকিয়া সড়ক ও বামনসুন্দর দারোগাহাট-মিঠাছড়া সড়ক দিয়ে যাতায়াত করছেন।
এই সড়কে নিয়মিত সিএনজি চালক অর্জুন দাস বলেন, সড়কের সদর থেকে নাজিরপাড়ার অবস্থা খুব খারাপ। এই সড়ক দিয়ে চলাচলের কারণে তাড়াতাড়ি গাড়ির যন্ত্রাংশ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

নিজামপুর সরকারি কলেজ শিক্ষার্থী সাজিদ উল্লাহ (২১) বলেন, ভাঙাচোরা অংশ দিয়ে চলাচল করতে হয়। গত ০২ মে এই সড়কে চলাচলের সময় সিএনজি উল্টে মাথায় প্রচণ্ড আঘাত পাই।

খবর নিয়ে জানা যায় গত কয়েকদিনে প্রায় ২০ জন আহত হয়েছেন এই সড়কে। যা এই সড়কের নিত্য নৈমত্তিক বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। আবার বিকল্প সড়ক না থাকায় এভাবেই চলছে প্রতিদিন।

এই জনদূর্ভোগের কখন অবসান হবে জানতে চাইলে মীরসরাইয়ের পৌর মেয়র গিয়াস উদ্দিন বলেন, এই রাস্তাটি বিশ্বব্যাংক এর প্রকল্পাধীন। পূর্বের ঠিকাদারকে বাতিল করে নতুন ঠিকাদার দেয়ার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন। বিশ্বব্যাংকের নির্ধারিত নিয়মের বাইরে যাবার সুযোগ পৌরসভারও নেই বলে জানান তিনি।

সুস্থভাবে যেন মীরসরাই উপজেলার এই রুটের কয়েকটি ইউনিয়নের হাজার হাজার যাত্রী স্বাভাবিক চলাচল ফিরিয়ে দেবার দাবি জানায় সংশ্লিষ্ট বিভাগের কাছে। সর্বোপরি এই সংকট সমাধানে আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মীরসরাই-এর সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের কঠোর হস্তক্ষেপই সময়ের দাবি বলে মনে করেন বিজ্ঞ পর্যবেক্ষক মহল।

সম্পাদনা : মিঠুন রাকসাম

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত