প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

উৎসব শেষে ক্লান্ত ত্বকের যত্ন

নিউজ ডেস্ক: ঈদের ছুটিতে প্রচুর ঘোরাঘুরি এবং খাওয়াদাওয়া হয়েছে। দীর্ঘ ভ্রমণও করতে হয়েছে কাউকে কাউকে। আবার উৎসব মানেই সাজগোজ ও দীর্ঘসময় ধরে মেকআপ রাখা।

উৎসবের ব্যস্ততায় ত্বকের যত্ন নেওয়ার সুযোগ হয়নি অনেকেরই। ফলে উৎসবের পরেই ত্বক হয়ে যায় নির্জীব ও মলিন। দেখা দিতে পারে ব্রণ, র‍্যাশ, রোদে পোড়া দাগ ইত্যাদি।

উৎসবের পরেও উজ্জ্বল ও সুন্দর ত্বক পেতে তাই প্রয়োজন বাড়তি যত্ন। আসুন দেখে নেই উৎসবের ছুটির পর উজ্জ্বল ত্বক পেতে কী করবেন।

ত্বকের প্রয়োজন ডিটক্স বা গভীর থেকে পরিষ্কার

উৎসবের এই সময়ে প্রতিদিন মেকআপ করলেও গভীরভাবে পরিষ্কারের সুযোগ হয়তো মেলেনি। এখন থেকেই শুরু করুন ত্বকের যত্ন।

শুরুতেই অয়েল ক্লিনজার বা যেকোন মেকআপ ওয়াইপস দিয়ে মুখ, গলা ও কাঁধ মুছে ফেলুন। তারপর আপনার ত্বকের উপযোগী ফেসিয়াল ক্লেনজার বা ফোম বেজড ক্লেনজার দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এরপর তুলার সাহায্যে টোনার দিয়ে ত্বকের উপযোগী ময়েশ্চারাইজার দিন। ত্বক খুব বেশি ড্যামেজড হয়ে গেলে ত্বকে কোন সিরাম ইউজ করতে পারেন। আর দিনের বেলা সানস্ক্রিন ছাড়া ভুলেও বের হবেন না।

আবার, মেকআপ ও নিয়মিত যত্নের অভাবে ত্বকে যেসব সমস্যা দেখা যায় সেগুলো দূর করতে মাস্ক উপকারি। ত্বককে গভীর থেকে পরিষ্কার করতে মাস্কের জুড়ি মেলা ভার।

প্রাকৃতিক উপাদান যেমন কফিসমৃদ্ধ মাস্ক ব্যবহার করলে উপকার পাবেন। এসব মাস্কে একই সাথে পরিষ্কারক ও এক্সফোলিয়েটিং গুণ আছে। আবার স্ক্রাবিংয়ের কাজও করে। ফলে ত্বকে আনে উজ্জ্বলতা ও টানটান ভাব।

কফি ছাড়াও ক্লে, চারকোল আর লবণ আছে এমন মাস্কে রোমকূপ ছোট করে, দাগ কমায় ও ত্বকের রঙের অসামঞ্জস্য দূর করে। তাই উৎসবের পর পর উজ্জ্বল ও সুন্দর ত্বক পেতে মাস্ক ব্যবহার করুন।

নিজের জন্য কিছুটা একান্ত সময়

এবার ঈদে রোদ-বৃষ্টি মিলিয়ে আবহাওয়া মোটেই ত্বকের অনুকূলে ছিল না। তাই ঈদের পর নিজের জন্য কিছুটা সময় বের করুন। গোসলের পানিতে অ্যালোভেরা বা যেকোন এজেনশিয়াল অয়েল যোগ করলে শরীর ও মন দুয়েরই রিলাক্সেশন হবে।

আবার গোসলের পানিতে ল্যাভেন্ডার অয়েল ও মধু মিশিয়ে নিতে পারেন। মধু ত্বককে কোমল করার পাশাপাশি ত্বকের নানা ধরণের সংক্রমণ দূর করবে। আর ল্যাভেন্ডার স্ট্রেস দূর করার পাশাপাশি পেশীর ক্ষত সারতে উপকারী।

কর্মক্ষমতা বাড়াবে লেবুযুক্ত সাবান

মুহুর্তেই ক্লান্তি জুড়োতে লেবুর জুড়ি মেলা ভার। লেবুর গন্ধযুক্ত সাবানে মুহুর্তেই আপনার ত্বক হয়ে উঠবে তাজা ও ফুরফুরে। একই ধরণের কাজ করবে পুদিনা, ইউক্যালিপটাস তেল, সেজপাতা, কমলালেবু বা অন্য যেকোন ধরণের লেবুযুক্ত সাবান। যাদের দীর্ঘ সময় ভ্রমণ করতে হয়েছে তাদের জন্য এধরণের সাবান খুবই উপকারি।

চোখের নীচের ত্বকের যত্ন

উৎসব মানেই রাত জেগে আড্ডা, পার্টি ও ঘুমের অনিয়ম। ফলে চোখের নীচের ত্বকে ফোলা ভাব ও কালচে দাগ দেখা দেয়। এসবের থেকে মুক্তি পেতে চোখের নীচে আন্ডার আই মাস্ক ব্যবহার করুন।

আলু ও শসা ছেঁচে ফ্রিজে রেখে বরফের মোল্ডে রেখে জমিয়ে নিতে পারেন। এই বরফের টুকরো দিয়ে চোখের যত্ন নিতে পারেন। হাতে সময় না থাকলে শসা ও আলু স্লাইস করেও ডিপ ফ্রিজে রেখে ব্যবহার করতে পারেন। উপকার পাবেন।

ভুলবেন না ঠোঁটের যত্ন নিতে

এই কদিনের টানা ও দীর্ঘসময়ের মেকআপে মুখের অন্যান্য অংশের মতো ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে আপনার ঠোঁটও। কারণ, আমাদের ঠোঁটের চামড়া তুলনামূলক বেশি পাতলা। প্রতিদিন হয়তো ঠিকমতো যত্ন নিতে পারেননি। এখন সময় ঠোঁটের মরা চামড়া পরিষ্কারের।

চিনি ও লেবুর রস মিশিয়ে স্ক্রাবিং করতে পারেন। আবার বানিয়ে নিতে পারেন ওটস ও আদার স্ক্রাব। একই পরিমাণের ওটমিল, ব্রাউন সুগার আর আদা ব্লেন্ড করে পেস্ট বানিয়ে ঠোটে লাগিয়ে স্ক্রাব করলে পাবেন কালো দাগমুক্ত কোমল ঠোঁট।

পরিষ্কার করুন মেকআপ ব্রাশ ও স্পঞ্জ

এ কদিনের একটানা ব্যবহারে হয়তো মেকআপ ব্রাশ বা স্পঞ্জগুলো পরিষ্কার করার সময় মেলেনি। এমনিতেও এগুলো নিয়মিত পরিষ্কার করেই ব্যবহার করা উচিৎ। নাহয় এগুলোতে জন্ম নিতে পারে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া। তাই নতুন করে ব্যবহারের আগে সবগুলো ব্রাশ আর স্পঞ্জ ধুয়ে ও শুকিয়ে নিন।

দূর করুন ব্লাকহেড

ঈদের আগেই হয়তো ফেসিয়াল করেছেন। কিন্তু এই কদিনের একটানা ঘোরাঘুরি, মেকআপ ও ঘুমের অনিয়মে ত্বকে নানারকম সমস্যা দেখা দিতে পারে। পুরো মুখেই চারকোল মাস্ক বা অন্য কোন মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন।

আবার নাকের উপর বা চারধারে জমা ব্ল্যাকহেডস দূর করত নাকের জন্য আলাদা যে পোর ক্লিনজিং স্ট্রিপ পাওয়া যায় সেগুলো ব্যবহার করুন। এতে মুখের সব অংশের ত্বক সমান ও মসৃণ লাগবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত