প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঋণ খেলাপিদের প্রণোদনার অনুরূপ কৃষকদের নগদ আর্থিক অনুদান দেয়া যায় বললেন, অধ্যাপক নাজমা

নুর নাহার : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. নাজমা বেগম বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতির যে অস্থির জায়গাগুলো রয়েছে সেখানে রাজস্ব আদায় এখন সমস্যা। আরেকটি খাত হচ্ছে ব্যাংকিং খাত এর সাথে ব্যক্তি খাতের বিনিয়োগ। তাছাড়া এবারে আরেকটি বিশেষ দিক এসে যোগ হয়েছে সেটি হচ্ছে কৃষক। বিবিসি বাংলা -৭.৩০

তিনি বলেন, কৃষি খাতে সমাধান হিসেবে কৃষককে কিছুটা আর্থিকভাবে সহযোগিতা করা যেতে পারে। যেমন, আমরা ব্যাংকিং খাতে দেখেছি যে, ঋণ খেলাপিদের কাছ থেকে ঋণ আদায়ে তাদেরকে কিছু প্রণোদনা দেয়া হয়। তাদের বলা হয় এতো শতাংশ খেলাপি ঋণ পরিশোধ করলে সুদের হার এতো কমিয়ে দেয়া হবে। এগুলো করতে গিয়ে যে পরিমান অর্থের প্রয়োজন হয় তার থেকে অনেক অনেক কম অর্থের প্রয়োজন হবে যদি কৃষকদের সরাসরিভাবে আর্থিক সহযোগিতা করা যায়। কারণ তাদের যে ক্ষতি হয়েছে তা আসলে অনেক বেশি।

তিনি আরো বলেন, ব্যক্তি খাতের বিনিয়োগ বাড়ানোর একটি হচ্ছে, আমার আয় আরো বেশি বাড়াতে হবে এবং আরেকটি হচ্ছে বাংলাদেশের কাস্টম ডুইং বিজনেস অনেক উচ্চ। যদি এটি কমানো যেতো। কিন্তু এটি সম্ভব নয়। এটি বেড়ে যাওয়ার কারণ হচ্ছে আমলাতান্ত্রিক জটিলতা। সেই জটিলতাকে যদি দুর করা যায় তাহলেই হয়তো কাস্টম ডুইং ব্যবসা কমে যেতে পারে। সেক্ষেত্রে ব্যক্তি খাতে বিনিয়োগ বেড়ে যেতে পারে। আরেকটি হচ্ছে কম সুদে যদি ঋণ দেয়া যায়। কিন্তু কম সুদে ঋণ দিতে পারছে না ব্যাংকগুলো। এর একটি বড় কারণ হচ্ছে খেলাপি ঋণ। এগুলো আসলে একটি আরেকটির সাথে জড়িত। যদি খেলাপি ঋণ কমানো যেতো তাহলে ব্যাংকগুলো কিছুটা সুদের হার কমাতে পারতো। সেখানে আবার আরেকটি কথা হচ্ছে যে শুধু সুদের হার কমালেই সম্ভব হবে না এখানে একটি মনিটরিং ব্যবস্থা থাকা দরকার। যাকে তাকে বিনিয়োগের জন্য অর্থ ধার দিয়ে আবার নতুন ঋণ যাতে না হয়। সম্পাদনা : কায়কোবাদ মিলন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত