প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শনিবার থেকে আমরণ অনশনে যাবেন ছাত্রলীগের বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা!

মুহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন, ঢাবি প্রতিনিধি: দীর্ঘ ১৮ দিন ধরে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অবস্থান করছেন ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত ও প্রত্যাশিত পদ না পাওয়া বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা। কিন্তু এখন পর্যন্ত তাদের দাবীর বিষয়ে কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেয়নি দায়িত্বশীল নেতাকর্মীরা। আগামী শুক্রবারের মধ্যে দাবী আদায় না হলে আমরণ অনশন শুরু করবেন বলে জানিয়েছেন অবস্থানকারীদের মুখপাত্র ছাত্রলীগের সাবেক কর্মসূচি ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক রাকিব হোসেন।

ঝড়বৃষ্টি উপেক্ষা করে অবস্থান কর্মসূচি অব্যাহত রাখছেন বিক্ষুব্ধ এ নেতাকর্মীরা।পবিত্র ঈদুল ফিতরের দিনও তারা তাদের অবস্থান কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছেন। তারা চারটি দাবিতে তাদের কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছেন। দাবিগুলো হল- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তাদের সাক্ষাতের সুযোগ করে দিতে হবে, কমিটি থেকে বিতর্কিতদের বাদ দিতে হবে, যোগ্যদের কমিটিতে পদায়ন করতে হবে এবং মধুর ক্যান্টিন ও টিএসসিতে তাদের ওপর হামলার সুষ্ঠু বিচার করতে হবে।

অবস্থান কর্মসূচির মুখপাত্র ছাত্রলীগের সাবেক কর্মসূচি ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক রাকিব হোসেন বলেন,‘আমরা দীর্ঘ ১৮ দিন ধরে এখানে(রাজু ভাস্কর্যে) মানবেতর জীবন যাপন করছি। অথচ আমাদের দাবীগুলো বাস্তবায়ন হয়নি। ছাত্রলীগের গত মাসে (১৩মে) কমিটি দেয়ার পর থেকে একমাস হয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত বিতর্কিতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। আমরা ৯৯ জন বিতর্কিত নেতার তালিকা দিলেও ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধরাণ সম্পাদক ২৮মে রাতে বিতর্কিত মাত্র ১৯ জনকে বহিষ্কার করেন। কিন্তু তারা কাদের বহিষ্কার করেছেন তাও জানান নি। আমাদের পদপদবি মুখ্য নয়, আমরা ছাত্রলীগকে কলঙ্কমুক্ত করতে চাই।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের একমাত্র আশ্রয়স্থল জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা। আমরা আগামী শুক্রবার পর্যন্ত অপেক্ষা করব। তার মধ্যে আমাদের দাবী আদায় না হলে আমরা আমরণ অনশনে যাব।’

প্রসঙ্গত, গত ১৩ মে ৩০১ সদস্যবিশিষ্ট ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পর বিক্ষোভ মিছিল ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলন করেন পদবঞ্চিত ও প্রত্যাশিত পদ না পাওয়া বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা। এসময়ে তাদের উপরে হামলা হয়।

পরে ১৮ মে রাতে সভাপতি সাধারণ সম্পাদকের কাছে ৩০১ সদস্যের মধ্যে বিতর্কিতদের তালিকাসহ হামলাকারীদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিতে গেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে বিক্ষুব্ধনেতাকর্মীদের উপর আবার হামলার অভিযোগে হামলার শিকার নেতারা রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অনশনে বসেন। পরে আওয়ামীলীগের জ্যেষ্ঠ নেতাদের এবং সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাসে ২২ ঘন্টা পর তারা অনশন ভাঙলেও ২৭মে বিতর্কিতদের নিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানানোর ঘটনাকে কেন্দ্র ঐদিন ভোররাত থেকে শুরু করে ১২জুন প্রতিবেদনটি লেখা পর্যন্ত রাজু ভাস্কর্যেই অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন তারা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত