প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পদ-পদবি মুখ্য নয়, ছাত্রলীগকে কলঙ্কমুক্ত করতে চাই, বললেন পদবঞ্চিতরা

মুহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন, ঢাবি প্রতিনিধি: দীর্ঘ ১৮ দিন ধরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অবস্থান করছেন ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত ও প্রত্যাশিত পদ না পাওয়া বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা। কিন্তু এখন পর্যন্ত তাদের দাবির বিষয়ে কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেননি দায়িত্বশীল নেতারা। পদ-পদবি মুখ্য নয়, ছাত্রলীগকে কলঙ্কমুক্ত করতে চাই বলে জানিয়েছেন অবস্থানকারীদের মুখপাত্র ছাত্রলীগের সাবেক কর্মসূচি ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক রাকিব হোসেন।

ঝড়-বৃষ্টি উপেক্ষা করে অবস্থান কর্মসূচি অব্যাহত রাখছেন বিক্ষুব্ধ এ নেতাকর্মীরা। পবিত্র ঈদ-উল ফিতরের দিনও তারা তাদের অবস্থান কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছেন। তাদের চারটি দাবি হল- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তাদের সাক্ষাতের সুযোগ করে দিতে হবে, কমিটি থেকে বিতর্কিতদের বাদ দিতে হবে, যোগ্যদের পদায়ন করতে হবে এবং মধুর ক্যান্টিন ও টিএসসিতে তাদের ওপর হামলার সুষ্ঠু বিচার করতে হবে।

অবস্থান কর্মসূচির মুখপাত্র ছাত্রলীগের সাবেক কর্মসূচি ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক রাকিব হোসেন বলেন,‘আমরা দীর্ঘ ১৮ দিন ধরে এখানে (রাজু ভাস্কর্যে) মানবেতর জীবনযাপন করছি। অথচ আমাদের দাবিগুলো বাস্তবায়ন হয়নি। ছাত্রলীগের গত মাসে (১৩ মে) কমিটি দেয়ার পর থেকে একমাস হয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত বিতর্কিতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। আমরা ৯৯ জন বিতর্কিত নেতার তালিকা দিলেও ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ২৮ মে রাতে বিতর্কিত মাত্র ১৯ জনকে বহিষ্কার করেন। কিন্তু তারা কাদের বহিষ্কার করেছেন তাও জানাননি। আমাদের পদ-পদবি মুখ্য নয়, আমরা ছাত্রলীগকে কলঙ্কমুক্ত করতে চাই।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের একমাত্র আশ্রয়স্থল জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা। আমরা আগামী শুক্রবার পর্যন্ত অপেক্ষা করবো। তার মধ্যে আমাদের দাবি আদায় না হলে আমরা আমরণ অনশনে যাবো।’

গত ১৩ মে ছাত্রলীগের ৩০১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পর বিক্ষোভ মিছিল ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলন করেন পদবঞ্চিত ও প্রত্যাশিত পদ না পাওয়া বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা। এ সময়ে তাদের উপরে হামলা হয়।
পরে ১৮ মে রাতে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে ৩০১ সদস্যের মধ্যে বিতর্কিতদের তালিকাসহ হামলাকারীদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিতে গেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীদের ওপর আবার হামলার অভিযোগে হামলার শিকার নেতারা রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অনশনে বসেন। পরে আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতা ও ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাসে ২২ ঘন্টা পর তারা অনশন ভাঙেন। কিন্তু ২৭ মে বিতর্কিতদের নিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানানোর ঘটনায় ওইদিন ভোররাত থেকে শুরু করে এ পর্যন্ত রাজু ভাস্কর্যেই অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন তারা।
সম্পাদনা: অশোকেশ রায়

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত