প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দাঁতের চিকিৎসা শেষে ফের কেবিনে খালেদা জিয়া

শিমুল মাহমুদ : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন কারাবন্দী খালেদা জিয়াকে মুখের ঘায়ের জন্য দন্ত বিভাগে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। ঘণ্টাখানেক পর কড়া নিরাপত্তার মধ্যে আবার তাকে কেবিনে ফিরিয়ে নেওয়া হয় বলেও জানান হাসপাতালের অতিরিক্ত পরিচালক নাজমুল করিম।

খালেদা জিয়া এক সাইডের দাঁতের সার্ফনেসের জন্য খেতে অসুবিধা হয়, জিহবায় লাগে, সেজন্য দন্ত মেসিন দিয়ে দাঁতের সার্পনেসটাকে গ্র্যান্ডিং বা সমান করে দেয়া হয়েছে যাতে দাঁতের সাথে জিহবার খোঁজা না লাগে। দুপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল এ কে এম মাহবুবুল হক একথা জানান।

এরআগে বেলা সাড়ে ১২টায় তাকে বিশেষ নিরাপত্তায় কেবিন ব্লক থেকে হাসপাতালের নিজস্ব মাক্রোবাস ঢাকা মেট্রো-চ ৫৬২৮৩২ নম্বর গাড়িতে করে ‘এ’ ব্লকের ডেন্টাল বিভাগে আনা হয়। চিকিৎসা শেষে ১টা ৫০ মিনিটে তাকে আবার কেবিনে ফিরিয়ে নেয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।
খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে তিনি বলেন, উনার শারীরিক অবস্থা বেশ ভালো। আপনারা নিজেরাও যাওয়ার সময়ে উঠার সময়ে দেখেছেন উনি ভালো আছেন। উনি আসার দিন যা ছিলো, ইনশাল্লাহ অনেক অনেক বেটার। উনার দাঁতে কিছুটা সমস্যা ছিলো। ডেন্টাল ডিপার্টমেন্টে তাকে নিয়ে সেটা ঠিক করে দেয়া হয়েছে। নাথিং। আর কিছু না।

মাহবুবুল হক বলেন, খালেদা জিয়ার ডায়াবেটিকস নিয়ন্ত্রণ আছে এবং তিনি নিয়মিত ইনসুলিন নিচ্ছেন। উনার ফাস্টিং লেভেল অনেক কন্ট্রোলে আছে।

কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে পরিচালক বলেন, এই বিষয়ে আমাদের উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষ অথবা আইজি প্রিজন পর্যায় থেকে কোনো কিছু না পাওয়া পর্যন্ত আমাদের কিছু বলা সুযোগ নেই। আমরা জানি না। এরকম নির্দেশনা পাই নাই।
সাংবাদিকদের সাথে আলাপের সময়ে অতিরিক্ত পরিচালক নাজমুল করিম ও উপ-পরিচালক খুরশীদ আলম উপস্থিত ছিলেন। গত ১ এপ্রিল থেকে খালেদা জিয়া বিএসএমএমসউতে কেবিন ব্লকে চিকিসার জন্য ভর্তি হন।

বিএসএমএমইউ‘র ড্যাবের সাবেক সভাপতি ডা. সাইফুল ইসলাম সেলিম সাংবাদিকদের বলেন, আমরা দেশবাসীর সাথে উদ্বিগ্ন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে। আমরা যতটুকু জেনেছি, দেশনেত্রীর ডান সাইডের নিচে প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় মোলার টিথ বা মাড়ির দাঁতগুলো বয়সজনিত কারনে আংশিক ক্ষয় হয়ে ভেঙে গেছে। যারজন্য উনার মাড়িতে কোনো কিছু চাবানোর সময়ে আঘাত লাগে সেজন্য বহুদিন ধরে তার মুখের ঘা শুকাচ্ছিল না।

তিনি বলেন, আমাদের এখনাকার অথিরিটি আজকে ডেন্টাল বিভাগে নিয়ে উনার দাঁত ঘষে সার্পনেসটা অর্থাৎ দাঁতের ধারালো মাথাগুলোকে ভোতা করে দেয়া হয়। যাতে কাঁমড় না খায়, মাড়িতে আঘাত না লাগে। দেশনেত্রী এখনো সুস্থ হননি। আজকে তাকে হুইল চেয়ারে করে ডেন্টাল বিভাগে নেয়া হয়েছে। আমরা দাবি করবো, দেশনেত্রীর সুচিকিৎসা নিশ্চিত করা এবং তিনি যাতে দ্রুত সুস্থ হয়ে আমাদের মাঝে ফিরে আসেন।

দলের সহ স্বাস্থ্য বিষয়ক সহ সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার যে দুইজন ব্যক্তিগত চিকিৎসক আছেন তাদের না জানিয়ে হঠাৎ করেই আজকে দাঁতের চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। যে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে সেটা সাময়িক চিকিৎসা, তার দাঁতের সমস্যার স্থায়ী চিকিৎসা প্রয়োজন।

এ সময়ে ড্যাবের নজরুল ইসলাম, মোহাম্মাদুল্লাহ মোস্তফা, মনোয়ারুল কাদির লিটু, মহিলা দলে সাবিনা ইয়াসমিন প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত